সিরাজদিখান থানা : সাধারন মানুষের আতংক!

মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান থানা সাধারন মানুষের যেন আতংক। এখানে কোন আইন চলেনা বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। শুধুমাত্র থানা পুলিশের চাহিদা পূরন করতে পারলেই পার পাওয়া যায়। বিশেষ করে থানার এই ভয়ংকর রুপ ধারন করেছে বর্তমান সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবুল বাসার এ থানায় যোগ দেয়ার পর থেকেই। শুধু তাই নয় এই থানায় যোগ দেয়ার পূর্বে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় থাকা কালিনও তার বিরুদ্বে পাহাড় সমান অভিযোগ ছিল। যা বিভিন্ন গনমাধ্যমেও প্রকাশ পেয়েছে।


বর্তমানে সিরাজদিখান থানার আইন শৃংখলার চরম অবনতি ঘটেছে। চুরি-ডাকাতি, ছিণতাই, মাদক, হত্যা, গুম যেন এখানকার নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। থানায় প্রায় প্রতিদিনই ধরা পরছে মাদক। কিন্তু থানা পুলিশের চাহিদা পূরন করতে পারলে থানা থেকেই রহস্যজনক ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীরা। আবার অনেক নিরীহ জনসাধারনকে পুলিশ থানায় গ্রেফতার করে নিয়ে আশে। পরে পুলিশের চাহিদা মিটাতে নাপারলে পুলিশের কাছে রক্ষিত গাজা ও অস্র দিয়ে মামলা সাজিয়ে কোর্টে চালান করা হয় বলে ভুক্ত-ভোগিরা অভিযোগ করেন। ভুক্তভোগী নিমতলী এলাকার আনিছ ও বাসাইল এলাকার মো:এমদান জানান, তাদেরকে কোন অভিযোগ ছাড়াই গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে পুলিশের মোটা অংকের টাকার চাহিদা মিটাতে নাপারায় তাদের অস্র ও গাজার মামলায় কোর্টে চালান দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন। আবার অনেক চাদাবাজ সন্ত্রাসীকে পুলিশ অশ্রসহ গ্রেফতার করেছে, কিন্তু পুলিশের চাহিদা পূরন করে থানা থেকেই ছাড়া পেয়েছে এ রকম অনেক অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে এসব কারনে বর্তমান ওসি আবুল বাসারের ভয়ে এলাকার নিরীহ মানুষ আতংকে দিন কাটাচ্ছে। অবিলম্বে এ ওসির অপসারন নাহলে সাধারন মানুষ শান্তি পাবেনা বলে এলাকাবাসীর বিশ্বাস।

বাংলাপোষ্ট