২০টি গাছ কেটে নেওয়ার এক মাসেও ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের দক্ষিণ পাউসার ১৫ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গাছ অবৈধভাবে কেটে নিয়ে গেছে একটি কচুক্রিমহল। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য মহসিন খান গত ১৪ই আগষ্ট উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করলেও গত এক মাসেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সুযোগে গাছ কেটে নেওয়ার সঙ্গে জড়িতরা উল্টো দাতা সদস্য মহসিন খানকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগে জানা গেছে।

দাখিল করা অভিযোগে দাতা সদস্য মহসিন খান জানান, দক্ষিণ পাউসার গ্রামের সাবেক মেম্বার সোহেল মিয়া, কামাল খান ও সাবেক মেম্বার আক্তার হোসেন খান বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে থাকা কড়ই, মেহগনিসহ বিভিন্ন জাতের ২০ থেকে ২৫টি গাছ কেটে নিয়ে যায়। এখনও গাছ কাটা অব্যাহত রাখা হয়েছে। তিনি আরো জানান, এ বিষয়ে গত ১৪ই আগস্ট সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করা হলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, বন কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘ্টনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযোগের সত্যতা পান।

কিন্তু এরপর এক মাস অতিবাহিত হলেও রহস্যজনক কারনে গতকাল সোমবার পর্যন্ত জড়িতদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এ সুযোগে অভিযুক্তরা তাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে জানান দাতা সদস্য মহসিন খান। এ প্রসঙ্গে সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবুল কাশেম জানান, দাখিল করা অভিযোগ পেয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখনও তারা কেন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি তার খোজঁখবর নিয়ে ব্যবস্থা নিবেন বলেও জানান উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা আবুল কাসেম।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি