থেমে গেল বাল্য বিয়ে: বর-কনে পক্ষকে জরিমানা

বিয়ে চলাকালে মুন্সীগঞ্জ ইউএনও’র হস্তক্ষেপে থেমে গেল বাল্য বিয়ে। এ ঘটনায় ছেলে ও মেয়ে পক্ষকে জরিমানা করা হয়েছে। রোববার দুপুর ১২ টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত সময়ে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বজ্রযোগিনী ইউনিয়নের ডেকরাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনও সারাবান তাহুরার নেতৃত্বে এ বাল্য বিয়ে ভেঙ্গে দেয়া হয়। ছেলে ও মেয়ের বাড়িতে গিয়ে মুচলেকা নিয়ে স্বজনদের ৩ হাজার টাকা করে ৬হাজার টাকা জরিমানা করেন ইউএনও সারাবার তাহুরা।


মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনও সারাবান তাহুরা জানান, মুন্সীগঞ্জ সদরের বজ্রযোগিনী ইউনিয়নের ডেকড়াপাড়ার মালয়েশিয়া প্রবাসী মনসুর মিয়ার মাদ্রাসা পড়ুয়া মেয়ে মিতু আক্তারের (১২) সঙ্গে রামপাল ইউনিয়নের কোদাল দোয়া গ্রামের আব্বাস মিয়ার (৩৪) সঙ্গে বিয়ের দিন ধার্য্য ছিল। এ খবর পেয়ে প্রথমে রোববার দুপুর ১২ টার দিকে মেয়ের বাড়ি ডেকরাপাড়ায় ছুটে যাই। সেখানে গিয়ে বাল্য বিয়ে ভেঙ্গে দেয়া হয়। বিয়ের আয়োজক মেয়ের মা ও দুই খালুকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে দুপুর দেড়টার দিকে ছেলের বাড়ি কোদাল দোয়া গ্রামে গিয়ে ছেলের বড় ভাই ও চাচাকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। দুই পক্ষ থেকে মুচলেকা নেয়া হয় যে, এমন কাজ তারা আর করবে না।

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনও সারাবান তাহুরা আরো বলেন, এই ধরনের কাজ বন্ধ করতে প্রশাসন সবসময় তৎপর। এমন অভিযোগ পেলে আমরা ব্যাবস্থা নেব।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি