মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচলে অচলাবস্থা

মুন্সীগঞ্জের ভাগ্যকুল পয়েন্টে বিপদসীমার মাত্র ২৮ সে.মি. ওপরে প্রবাহিত হচ্ছে পদ্মার পানি। উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারণে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় প্রমত্ত্বা পদ্মায় প্রচন্ড স্রোত দেখা দিয়েছে। এতে করে মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচলে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। তীব্র ঝুঁকির মুখে পড়েছে নদীভাঙন কবলিত এসব এলাকাসমূহ। ফলে মাওয়া- কাওড়াকান্দি নৌরুটে ডাম্প ফেরি,সিঙ্গেল ও রো-রো ফেরিগুলো ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। এতে করে যানবাহন পারাপারে অতিরিক্ত সময় লাগছে। সংশি¬ষ্ট সূত্রে জানা গেছে , গত ২৪ ঘন্টায় শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল পয়েন্টে ১০ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়ে ৬ দশমিক ৪৮মিটার থেকে ৬ দশমিক ৫৮মিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে এবং মাওয়া পয়েন্টে ৮ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়ে ৫ দশমিক ৯৬ মিটার থেকে ৬দশমিক ০৪ মিটারে প্রবাহিত হচ্ছে।


এদিকে, নৌরুটে ফেরিঘাটে ভিড়তে না পেরে নৌরুটের বাইরে ৩-৪ কিলোমিটার নীচে লৌহজং ঘোড়দৌড় নালার দিকে চলে যাচ্ছে। এতে করে আগের তুলনায় নদী পারাপারে ৩০ মিনিট সময় বেশী নিচ্ছে বলে সংশি¬ষ্ট সুত্র জানিয়েছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকার কারণে যে কোন মুহুর্তে মাওয়া ৩টি ফেরিঘাট পন্টুন ও র‌্যাম সংলগ্ন সংযোগ সড়ক তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছে সংশ্লিষ্টরা। ফলে যে কোন মুহুর্তে মাওয়া ফেরিঘাট দিয়ে ফেরি পারাপার বিঘ্নিত হওয়ার উপক্রম হয়ে পড়তে পারে । মাওয়াস্থ বিআইডবি¬উটিসির মেরিন অফিসার আলী আহমেদ জানান, মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে পদ্মায় ঘাটের কাছে এবং মাঝনদীতে প্রচন্ড স্রোত তাকায় ফেরি চলাচলে মারাত্মক বিঘ্নিত হচ্ছে। এছাড়া পানির স্রোত ও পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় ঘাটগুলোও ঝুঁকির মুখে রয়েছে বলে তিনি আরো জানান ।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি