জেলা যুবলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক অবাঞ্ছিত

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার অডিটোরিয়ামে যুবলীগের একাংশের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তার-উজ-জামান রাজিব ও সাধারণ সম্পাদক মো. ফেরদৌস আলম খানকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে।

পাশাপাশি এক তরফাভাবে গত ৩১ জুলাই গঠিত সিরাজদিখান উপজেলা যুবলীগের কমিটি বাতিল করার দাবি জানিয়েছে সেখানকার যুবলীগ।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত সিরাজদিখান উপজেলা যুবলীগের একাংশ উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে ঈদ পুনর্মিলনী ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সভার আয়োজন করে। সেখানে যুবলীগের একাংশের নেতা ও সিরাজদিখান যুবলীগের সাবেক আহব্বায়ক ও লতব্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফেজ মো. ফজলুল হকের সভাপতির বক্তৃতাকালে জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মহিউদ্দিন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম সোহরাব হোসেন, সিরাজদিখান উপজেলার ভাইস-চেয়ারম্যান এডভোকেট আবুল কাশেম, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।


অনুষ্ঠানে সিরাজদিখান উপজেলা যুবলীগের এই অংশের নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, মহসিন ভূঁইয়াকে আহব্বায়ক ও জাহাঙ্গীর হোসেনকে যুগ্ন-আহব্বায়ক করে সিরাজদিখান উপজেলা যুবলীগের একটি কমিটি বিদ্যমান থাকার পরও গত ৩১ জুলাই জেলা যুবলীগের সভাপতি রাজিব ও সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস এক তরফাভাবে মো. রাকিবুল হাসান রাকিবকে আহব্বায়ক ও মাসুদ লস্করকে যুগ্ন-আহব্বায়ক করে ৩৫ সদস্যের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন।

যুবলীগ নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে দাবি করেন, ৩১ জুলাই গঠিত কমিটি অবৈধ। আর এই অবৈধ কমিটি ঘোষণা করায় ঈদ পুনর্মিলনী ও সাধারণ সভায় জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর
==============

জেলা যুবলীগ সভাপতি ও সম্পাদককে সিরাজদিখানে অবাঞ্চিত ঘোষণা

মুন্সিগঞ্জ জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান রাজীব ও সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম খানকে সিরাজদিখানে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৫টা সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা যুবলীগের ঈদ পুনর্মিলনী ও সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভা থেকে উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের নেতারা তাদের অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন।

এছাড়া গত ৩১ জুলাই গঠনতন্ত্র বহির্ভূতভাবে গঠিত সিরাজদিখান উপজেলা শাখার আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি আহ্বান জানানো হয় সভা থেকে।


সিরাজদিখান উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ও লতব্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফেজ ফজলুল হকের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন- সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিউদ্দিন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক এস এম সোহরাব হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম, জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেন, উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক হাফেজ ফজলুর হক প্রমুখ।

উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক হাফেজ ফজলুল হক বলেন, ‘গত ৩১ জুলাই গঠনতন্ত্র বহির্ভূত সিরাজদিখান উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক টাকার বিনিময়ে ঘোষিত কমিটির পক্ষে স্বাক্ষর করেছেন।’

এ জন্য বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত সভায় জেলা যুবলীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান রাজীর ও সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম খান এবং ঘোষিত আহ্বায়ক কমিটিকে সিরাজদিখানে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়।

এ প্রসঙ্গে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম খান বলেন, ‘দলীয় গঠনতন্ত্র মোতাবেক উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। সিরাজদিখানে যুবলীগের গ্রুপিংয়ের কারণে ৮ বছর কমিটি গঠন করা সম্ভব হয়নি।’

কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা যাচাই বাছাই করে কমিটি ঘোষণা করেছে। এতে জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাত নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর