প্রেমিকাকে বিয়ে না করায় প্রেমিক কারাগারে

মুন্সীগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে দৈহিক সম্পর্কের পর প্রেমিকাকে রেখে অন্য মেয়ে বিয়ে করার সিদ্ধান্তের দায়ে প্রেমিক আরমান ফকিরকে (২৮) পুলিশ গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জ সদরের চরাঞ্চলের মহেশপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বিকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সদর থানার সেকেন্ড অফিসার সুলতান আহমেদ জানান, ২০০৮ সাল থেকে মুন্সীগঞ্জ সদরের উপজেলার মহেশপুর গ্রামের নূরুল হক ফকিরের ছেলে আরমান ফকিরের সঙ্গে একই উপজেলার মাস্তানবাজার এলাকার শফিকুল ইসলামের মেয়ে আঁখি আক্তারের (১৮) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর থেকে তারা দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে।

শুক্রবার আরমান আঁখিকে বিয়ে না করে অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করতে যাচ্ছে এমন খবর পেয়ে আঁখি সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এ ঘটনায় দুপুরে প্রেমিক আরমানকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়।

জাস্ট নিউজ
=======

বিয়ে করতে যাওয়ার পথেই গ্রেফতার

মুন্সীগঞ্জে প্রেমিকার অভিযোগের ভিত্তিতে বিয়ে করতে যাওয়ার পথে আরমান ফকির(৩০)নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে খালইষ্ট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।<

সূত্র জানায়, ২০০৮ সাল থেকে মুন্সীগঞ্জ সদরের মাস্তানবাজার এলাকার শফিকুল ইসলামের মেয়ে আঁখি আক্তারের(১৯) সঙ্গে একই উপজেলার মহশেপুর গ্রামের নূরুল হক ফকিরের ছেলে আরমান ফকিরের প্রেমের সর্ম্পক গড়ে ওঠে।


শুক্রবার আরমান আঁখিকে বাদ দিয়ে অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করতে যাচ্ছে এমন খবর পেয়ে আঁখি সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুলতান উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দৈহিক সর্ম্পক তৈরি করা ও সহায়তা করার অভিযোগে প্রেমিক আরমান ও তার ভাই সোহেলসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরও দুইজনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ মামলার প্রধান আসামি মো. আরমানকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে বিকেলে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর