জাপানে জাতীয় শোক দিবস পালিত

japan15aরাহমান মনি
যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে জাপানে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ৩৮ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালনের উদ্দেশ্যে টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এক কর্মসূচী গ্রহণ করে।

কর্মসূচীর মধ্যে ছিল সকাল ৯ টায় দূতাবাস ভবনে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন শেষে অর্ধনমিত করণ, বিশেষ মোনাজাত, জাতির জনক ও তাঁর পরিবারের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন এবং বাণী পাঠ।


বিকেল ৬ টায় বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন, জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, শ্রদ্ধা নিবেদন, জাতির পিতার গৌরবময় জীবনালেখ্য নিয়ে প্রামান্যচিত্র প্রদর্শন এবং স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে তাঁর অসামান্য অবদানের উপর আলোচনা, জাতির পিতা ও তাঁর পরিবারের শাহাদাত বরণকারী সদস্যবৃন্দের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মিলাদ মাহফিল ও দোয়া এবং সবশেষে আপ্যায়ন।

সকাল ৯ টায় মান্যবর রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন , দূতাবাস কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ এবং প্রবাসী নেতৃবৃন্দের উপস্থিতে দূতাবাস ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শেষে অধ:নমিত করেন। যথারীতি বরাবরের মতো এ সময় প্রবাসী নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেবল জাপান শাখা ( প্রস্তাবিত কমিটি ) আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব সালেহ মো: আরিফ এবং সাধারন সম্পাদক খন্দকার আসলাম হিরা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জনাব জিয়াউল ইসলাম , শেখ এমদাদ এবং মো: ছিদ্দিকুর রহমান ভূঁইয়া প্রমুখ। আওয়ামীলীগের কান্ডারী, ভান্ডারী দাবীদারদের মধ্যে কেহ উপস্থিত ছিলেন না। সকালের আরামের ঘুম নষ্ট করে ওইসব কান্ডারীরা উপস্থিত হতে চান নি। যদিও সান্ধ্যাকালীন আয়োজনে অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

উভয় আয়োজনে এর ১৫ আগষ্ট ইতিহাসের নৃশংস হত্যাকান্ডের শাহাদাত বরণকারীদের আত্মার শান্তি কামনা, বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও সংহতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত এবং জাতির জনক ও তাঁর পরিবারের শাহাদাত বরণকারী সদস্য, একই ঘটনায় শাহাদাত বরণকারী অন্যান্যদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে দাড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এসময় গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরন করা হয় ৫২ মহান ভাষা আন্দোলন , ‘৭১ মুক্তিযুদ্ধ এবং ২১ আগষ্ট নৃশংস গ্রেনেড হামলায় জীবন উৎসর্গদান কারীদের।
japan15a

japan15b

japan15c
দিবসটির তাৎপর্যে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রী প্রদত্ত বাণী সমূহ পাঠ করে শোনানো হয়। দূতাবাস কর্মকর্তাগণ বাণীগুলি পাঠ করে শোনান।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন । সবশেষে সকলকে নৈশভোজে আপ্যায়ন করা হয়।

rahmanmoni@gmail.com