বল্লালবাড়িতে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা

মুন্সীগঞ্জে স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে কেরোসিন ঢেলে নিজের শরীরে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন রহিমা বেগম (২৪) নামে এক গৃহবধূ। তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত ডাক্তার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে রেফার করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০ টার দিকে সদর উপজেলার রামপালের বল্লালবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ স্বামী নুরুল হক (৩৫)-কে গ্রেপ্তার করেছে।

মুন্সীগঞ্জ থানার ওসি (প্রশাসন) মো. শহীদুল ইসলাম জানান, গত ৬ বছর আগে সিরাজদিখানের তালতলা গ্রামের সরাফত আলীর মেয়ে রহিমা বেগমের সঙ্গে হাশেম আলীর ছেলে নুরুল হকের বিয়ে হয়। বিয়ের পরপরই তারা বল্লালবাড়ির পীর মোহাম্মদের বাড়ি ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছে। কিন্ত বখাটে স্বামী বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য স্ত্রী রহিমাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছে। মঙ্গলবার সকালে ফের রহিমাকে নির্যাতন করে স্বামী নুরুল হক। এতে রাগে-ক্ষোভে রহিমা নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার মুখ মন্ডলসহ শরীরের উপরের অধাংশ জ্বলসে গেছে।


স্থানীয়রা তাকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। রাবেয়া আক্তার নামে ৪ বছরের একটি কন্যা শিশু রয়েছে তাদের। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর