যাত্রী শূন্য মাওয়া ঘাট

mawa-2-munshiganjমাওয়া দেশের দক্ষিণবঙ্গের যাত্রীদের একমাত্র প্রবেশ পথ। ঈদের আগ মুহূর্তে বুধবার অনেকটা যাত্রী শূন্য পরিবেশ বিরাজ করছে মাওয়া ঘাটে। এবার যাত্রী ভোগান্তি কমাতে কলমি লতা ও কনক চাপা নামে ২টি নতুন ফেরি নামায় সরকার। সবমিলিয়ে ১৬ টি ফেরি দিনরাত যাত্রীদের পারাপার করছে।
mawa-2-munshiganj
তবে, আগে থেকেই পরিবারের মহিলা ও শিশু সদস্যরা ঘরমুখো হওয়ায় মাওয়ায় যাত্রীর চাপ কম বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

তবে, অতিরিক্ত যাত্রী না থাকলেও হাইওয়ে, নৌ-ফাঁড়ির পুলিশ ও খেয়াঘাটের ইজারাদারের চাঁদাবাজি এখন তুঙ্গে। উচ্চ আদালতের রায়ে মাওয়া খেয়াঘাট টোলমুক্ত রাখার নির্দেশ দেয়া হলেও ইজারাদার গণহারে চাঁদাবাজি করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

সি-বোট ঘাটে ১২০ টাকার স্থলে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা, ট্রলার ঘাটে ২০-৩০টাকা ও লঞ্চঘাটে ২০-৩০ টাকা টোল আদায় করছে।

লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. অহিদুল ইসলাম জানান, ঈদে দক্ষিণাঞ্চলগামী ২১টি জেলার হাজার হাজার মানুষের পারাপারের সুবিধার্থে সব রকম ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।


লৌহজং থানার (ওসি) জাকিউর রহমান জানান, ঘাটে ঈদকে সামনে রেখে যাত্রী পারাপারে জট জামেলা এড়াতে নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোরডট