মুন্সীগঞ্জের তিন হাজার শিক্ষক-কর্মচারী বেতন পাননি!

ঈদের বেতন-বোনাস পাননি মুন্সীগঞ্জের দেড় শতাধিক এমপিওভুক্ত স্কুল-মাদ্রাসার প্রায় তিন হাজার শিক্ষক কর্মচারী। বুধবার সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে গিয়ে দেখতে পান বেতন বোনাসের টাকা জমা না হওয়ায় খালি হাতেই বাড়ি ফিরতে হয়েছে তাদের।

ঈদ আসতে বাকি আর মাত্র দুইদিন। সন্তানদের ঈদের জামা কাপড়সহ প্রয়োজনীয় কেনাকাটার করার অপেক্ষায় পরিবারের সবাই। এই সময়ে কাঙ্খিত ঈদ বোনাসসহ বেতন না পাওয়ায় শিক্ষকরা দিশেহারা।

জানা গেছে, মুন্সীগঞ্জ জেলায় এমপিও ভুক্ত ১২১টি উচ্চ বিদ্যালয়, ৩৩টি মাদ্রাসা ও ৩টি কারিগরি বিদ্যালয় রয়েছে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় তিন হাজার শিক্ষক ও কর্মচারী বুধবার অগ্রণী ব্যাংকের নির্ধারিত শাখা থেকে বেতন ও ঈদ বোনাস তুলতে যান।


এ সময় ব্যাংকে বেতন বিল না আসায় ফিরে গেছেন তারা।

শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোটের মহাসচিব ও কামারগাও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জাহাঙ্গির খান বাংলানিউজকে জানান, বুধবার পর্যন্ত শিক্ষকদের বেতন বিলের এনবয়েস এসে ব্যাংকে পৌঁছেনি। এ কারণে জেলার প্রায় তিন হাজার শিক্ষক তাদের বেতন ও ঈদ বোনাস তুলতে পারেননি।

৭ আগস্টের মধ্যে স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ও বোনাস তোলার ঘোষণা দিলেও কি কারণে ও কাদের অবহেলায় বেতন বিলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ব্যাংকে পৌঁছেনি তা তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

এ প্রসঙ্গে অগ্রণী ব্যাংক মুন্সীগঞ্জ শাখার কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন বাংলানিউজকে জানান, বেতন বিল বুধবার পর্যন্ত ব্যাংকে এসে পৌঁছেনি। এনভয়েস হাতে পেলে বেতন দেওয়া সম্ভব হবে। যেহেতু বৃহস্পতিবার থেকে ব্যাংক বন্ধ, তাই ঈদের আগে শিক্ষকদের বেতন ও বোনাস তোলা সম্ভব হবে না বলে মনে হচ্ছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর