মুসলীম বিশ্বের কূটনীতিকদের সম্মানে জাপান’র প্রধানমন্ত্রী আবে’র ইফতার

Iftar with PM Abeরাহমান মনি
জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিন্জো আবে ৩১ জুলাই বুধবার তার সরকারী কার্যালয়ে মুসলীম বিশ্বের কূটনীতিকদের সম্মানে ইফতারের আয়োজন করেন। ইফতার আয়োজনে ৩৪টি মুসলীম দেশের রাষ্ট্রদূত এবং তাদের প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাসুদবিন মোমেন সস্ত্রীক অংশগ্রহণ করেন। ইফতার আয়োজনে জাপানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জনাব ইয়োশিহিরো মোরি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা উপস্থিত ছিলেন।

৪০টি মুসলীম দেশের রাষ্ট্রদূতদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল ইফতার আয়োজনে। দেশগুলি হচ্ছে আফগানিস্তান, আলজেরিয়া, আজারবাইজান, বাহরাইন, বাংলাদেশ, বেনিন, ব্র“নেই দারুস সালাম, ইজিপ্ট, গ্যইনিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, ইরাক, জর্ডান, কাজাখস্তান, কুয়েত, কিরজিজ, লেবানন, লিবিয়া, মালদিবস, মোরিতানিয়া, মরক্কো, মোজাম্বিক, নাইজেরিয়া, ওমান, পাকিস্তান, প্যালেস্টাইন অথরিটি, কাতার, সৌদি আরব, সেনেগাল, সুদান, তাজিকিস্তান, তিউনিশিয়া, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত, উজবেকিস্তান এবং ইয়েমেন।


ইফতার পূর্ব এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্য জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিন্জো আবে, মুসলীম দেশগুলি থেকে আগত কুটনীতিকদের শুভচ্ছা জানিয়ে বলেন, ইফতার আয়োজন বন্ধু প্রতীম মুসলীম দেশগুলোর সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো জোরদার হবে। আবে বলেন, গত বৎসর শেষ নাগাদ আমি সরকার গঠন করে মুসলীম দেশগুলোর সাথে সম্পর্ক উন্নয়নে মনোযোগ দিই। এই জন্য আমি দক্ষিণপূর্ব এশিয়া এবং মধ্যপ্রাচ্য সফর করি। আরব-আফ্রিকান মুসলীম দেশ ইজিপ্ট (ডাখালিয়া) থেকে আগত জাপান সুমোকুস্তিগীর ওসুনারাশিকে সম্মানজনক আমন্ত্রণ জানান প্রধানমন্ত্রী আবে। সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে আবে আরো বলেন, ইফতার আয়োজন মুসলীম দেশগুলির সাথে জাপানে বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগিতা এবং বন্ধুত্বের সেতুবন্ধন হিসেবে কাজে লাগবে।

জাপানে মুসলীম দেশগুলি কূটনৈতিক সি আলজেরিয়ায় রাষ্ট্রদূত সিড আলি কেটরানজি আবে জোট সরকারের শরীক দল ‘নিউ কোমেইতো পার্টি’ প্রতিনিধি দলের প্রধান জনাব নাৎসুও য়ামাসুচি ইফতার আয়োজনে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।
Iftar with PM Abe
ইফতার চলাকালীন সময় প্রধানমন্ত্রী আবে আগত অতিথি সকলের সাথে পর্যায়ক্রমে ব্যক্তিগত পরিচিতি এবং শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এক পর্যায় তিনি বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেনের সাথেও সৌজন্য শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। অতি সম্প্রতি উচ্চ কক্ষ নির্বাচনে আবে’র দল এলডিপি সংখ্যাগরিষ্টতা লাভ করায় রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন তার ব্যক্তিগত এবং বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানালে, প্রধানমন্ত্রী আবে ধন্যবাদ জানিয়ে তার মাধ্যমে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানান। এই সময় তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করেন।

উল্লেখ্য প্রধানমন্ত্রী আবে ২০০৭ সালে প্রথম মেয়াদে সরকার গঠন করলে মুসলীম দেশগুলির কূটনীতিকদের সম্মানে ইফতার আয়োজন করেন। প্রথম মেয়াদে তিনি এক বৎসর ক্ষমতায় ছিলেন। ২০০৩ সালের নভেম্বর-এ তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী কোইজুমি জুনইচিরো ও অনুরূপ ইফতারের আয়োজন করেছিলেন।

rahmanmoni@gmail.com
সূত্র: জাপান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
ছবি: ফাহমিদা জাবিন সোমা।