মুন্সীগঞ্জে পুলিশের নির্যাতনে যুবকের মৃত্যু!

basir-munshiganjমুন্সীগঞ্জে পুলিশের নির্যাতন ও বিনা চিকিৎসায় মো. বছির (৩০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার দুপুরে নিহত বছিরের বৃদ্ধ মা জহুরা বেগম পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করে নির্যাতনকারী এসআই মো. সেলিম মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। এছাড়াও ওই এসআইয়ের বিরুদ্ধে ব্যাপক চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, শহরের বাগমামুদালী এলাকার প্রয়াত জয়নাল আবেদীনের ছেলে মো. বছির অসুস্থ হয়ে পড়লে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৬ জুলাই রাত ৯টার দিকে সদর থানার এসআই সেলিম মিয়া বছিরকে আটক করে বেদম প্রহার করে থানায় নিয়ে যায়। কিন্তু বছিরের বিরুদ্ধে কোন মামলা না থাকায় একটি পেন্ডিং মামলায় আসামি দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়।


এরপর গত ২৮ জুলাই বছির অসুস্থ হয়ে পড়লে কারাগার কর্তৃপক্ষ তাকে প্রথমে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পর দিন ২৯ জুলাই দুপুর ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

সোমবার দুপুরে বছিরের মা তার ছেলের মৃত্যুর বিষয়ে পুলিশ সুপারের কাছে দাখিল করা অভিযোগে সদর থানার পুলিশ অফিসার এসআই মো. সেলিম মিয়ার বিরুদ্ধে ছেলে হত্যার অভিযোগ করে লিখিত আবেদন করেন।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, বছিরকে অসুস্থ ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় এসআই সেলিম নির্যাতন করায় বিনা চিকিৎসায় তার ছেলে মারা গেছে। এ ঘটনা সুষ্ঠু তদন্ত করে এসআই সেলিমের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান বছিরের পরিবার।

এদিকে, এরআগে গত ১৫ জুলাই রাতে শহরের হরগঙ্গা কলেজ রোড এলাকা থেকে শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকার কসাই নাসিরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে থানায় আটক করে পেন্ডিং মামলায় ভয় দেখিয়ে নাসিরের পরিবারের কাছ থেকে নগদ ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরদিন তাকে ৩৪ ধারায় আদালতে প্রেরণ করে।


নাসিরকে আটকের সময় তার সঙ্গে থাকা একটি মোবাইল ফোনসেট ও নগদ ১হাজার ৮শ’ টাকা ছিল। ওই টাকা ও মোবাইল ফোনসেটও হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালায় এসআই সেলিম। নাসির জামিনে বের হওয়ার পর মোবাইল ও টাকা ফেরত চাইলে এসআই সেলিম তাকে শাসায়। পরে এক সাংবাদিকের হস্তক্ষেপে ওই টাকা ও মোবাইল ফোনসেট ফেরত দিতে বাধ্য হয় অভিযুক্ত দারোগা মো. সেলিম মিয়া।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর
=============