মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচলে অচলাবস্থা কাটেনি

মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচলে অচলাবস্থা কাটেনি। গত দু’সপ্তাহ ধরে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারণে প্রমত্ত্বা পদ্মায় তীব্র স্রোত অব্যাহত রয়েছে। এতে করে পদ্মায় প্রচন্ড স্রোতের কারণে মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচলে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে। মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ডাম্পু ফেরি ,সিঙ্গেল ফেরি গুলো পানির স্রোতে মাওয়া ঘাটের কাছে ভীড়তে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে । এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে আসন্ন ঈদে এ রুটে যাত্রীদুর্ভোগের আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। কেননা পদ্মায় স্রোতের কারণে ফেরি পারাপারেও সময় বেড়ে গেলেও নৌরুটের ১৪ টি ফেরি বহরে “আমানত শাহ ”নামের আরো একটি মাত্র রো রো ফেরি ফেরির বহরে সংযুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানা গেছে । জানা গেছে , এর আগে গত ১৩ জুলাই ভাগ্যকুল পয়েন্টে পদ্মার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করার উপক্রম হয়ে পড়ে।এ সময় পদ্মায় পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় মাওয়া পয়েন্টেও একই অবস্থা বিরাজ করতে থাকে । ফলে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে পানি বৃদ্ধি নৌরুটে তীব্র স্রোত দেখা দেওয়ার কারণে মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরি চলাচলে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয় । মাওয়া ফেরিঘাট থেকে ২-৩ কিলোমিটার অদূরে পদ্মা নদীর মূল চ্যানেলে এ স্রোত দেখা দেয়।


এ সময় যাত্রীবাহী ফেরি কাকলীও লেংটিংসহ অধিকাংশ ফেরিগুলো ঘাটে ভীড়তে না পেরে নৌরুটের বাইরে ৩-৪ কিলোমিটার নীচে লৌহজং ঘোড়দৌড় নালার দিকে চলে গিয়েছিল । এতে করে আগের তুলনায় নদী পারাপারে ৩০থেকে ৪০ মিনিট সময় বেশী নিচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়। এদিকে নৌরুটে ফেরি চলাচলে এ অচলাবস্থার দুসপ্তাহ অতিবাহিত হলেও সোমবার পর্যন্ত ফেরি চলাচলে একই অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানান মাওয়া বিআইডব্লিউটিসির ম্যানেজার বাণিজ্য সিরাজুল হক। তিনি জানান, পদ্মায় এখনো প্রচন্ড মাত্রায় স্রোতের বেগ রয়েছে। যার কারণে নৌরুটে ফেরি চলাচলে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে।

মাওয়া বিআইডবিব্লউটিসির মেরিন অফিসার আলী আহমেদ সোমবার জানান, মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে পদ্মায় প্রচন্ড স্রোত এখনো আগের মতোই রয়েছে। গত বছর এ স্রোত তথা পানির বেগটি ঘাটের কাছাকাছি থাকলেও এবছর এ স্রোত অনেকটা দুরে মূল পদ্মার দিকে অবস্থান করছে। ফলে ফেরিগুলো মাওয়া আসার পথে চলাচলে মারাত্মক বিঘিœত হচ্ছে ।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি