গাড়িশূন্য শ্রীনগর থানা

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানা পুলিশের এখন আর কোনো পরিবহন সুবিধা নেই। দুটি মাত্র পিকআপ ভ্যান দিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে যাও চলছিল তাও খাদে পড়ে চিরবিকল হয়ে রয়েছে দীর্ঘদিন। এতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে পুলিশের নিয়মিত টহল ব্যবস্থা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে দূরের ঘটনাস্থলে যেতে সমস্যায় পড়ছেন তারা। ফলে অনেক সময় অপরাধীকেও গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না।

ওদিকে শ্রীনগর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের ১৪ লাখ টাকা ব্যয়ে কিনে দেয়া পিকআপ ভ্যানটি এখন থানার ভেতর পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। অপর বিকল হয়ে পড়া গাড়িটি মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপারের হেফাজতে রয়েছে।


সূত্র মতে, গত ১৭ জুলাই রাতে টহলরত অবস্থায় শ্রীনগরের বাঘড়া এলাকায় চেয়ারম্যানদের টাকায় কিনে দেয়া পিকআপ ভ্যানটি খাদে পড়ে যায়। এ সময় শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মাহবুবুর রহমানসহ একই থানার ৪ পুলিশ আহত হয়।

এর আগে গত ৭ জুলাই ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সমষপুর এলাকায় অপর একটি পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় শ্রীনগর থানার ২য় গাড়িটি পার্শ্ববতী খাদে পড়ে যায়। এ সময় থানার এসআই মো. শফিকসহ ৪ পুলিশ আহত হয়। খাদে পড়ে যাওয়া গাড়ি দুটি রেকারের সাহায্যে উদ্ধার করা হয়।

দুর্ঘটনার পর দ্বিতীয় দুর্ঘটনাকবলিত পিকআপ ভ্যানটি পুলিশ সুপারের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়। প্রথম দুর্ঘটনার শিকার গাড়িটি থানার ভেতর ফেলে রাখা হয়েছে।


এ ঘটনার পর গত ১৮ জুলাই মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. হাবিবুর রহমান শ্রীনগর থানাকে আরেকটি গাড়ি দেয়। কিন্তু তাও ব্যবহার করার মতো নয়। প্রায়ই গাড়িটি পথের মধ্যে নষ্ট হয়ে পড়ে কাজে বাধার সৃষ্টি করছে। এ অবস্থায় শ্রীনগর থানার পুলিশ এখন গাড়ি শূন্যতায় ভুগছেন।

এ ব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো. সিদ্দিকুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গাড়ির অভাবে ডিউটি করা যাচ্ছে না। দূরে কোনো ঘটনা ঘটলে সঠিক সময়ে পৌঁছতে পারছি না। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

জাস্ট নিউজ