শ্রীনগরে অধ্যক্ষের মাথা থেঁতলে দিয়েছে ছাত্রলীগ

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের মাথা থেঁতলে দিয়েছে ছাত্রলীগ। এ সময় অধ্যক্ষের কক্ষে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়। বুধবার বেলা ১১টার দিকে শ্রীনগর সরকারি কলেজে এ ঘটনা ঘটে। একাদশ শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তির সুবিধা চেয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে অধ্যক্ষের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে অধ্যক্ষের মাথা থেঁতলে দেয় ছাত্রলীগ কর্মীরা। রক্তাক্ত ও জখম অবস্থায় শ্রীনগর কলেজের অধ্যক্ষ বিদ্যুত কুমার সাহাকে কলেজ প্রাঙ্গণে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এনে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এদিকে ঘটনা সামাল দিতে কলেজ ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা কলেজ ক্যাম্পাস ঘেরাও করে রেখেছে। সেখানে সংবাদকর্মীদের প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

শ্রীনগর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত। হাসপাতাল থেকে কলেজে ডাক্তার এনে অধ্যক্ষকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।


তিনি জানান, শ্রীনগর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন প্যারড ও থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পারভেজ সিকদার পনির শিক্ষার্থী ভর্তি সুবিধা চেয়ে অধ্যক্ষের কক্ষে প্রবেশ করেন। এ সময় ছাত্রলীগের ওই ২ নেতা অধ্যক্ষের কক্ষে রাখা চেয়ারের সামনের সারিতে গিয়ে বসেন।

অধ্যক্ষ তাদের পেছনে গিয়ে বসার অনুরোধ জানালে ছাত্রলীগ নেতা ও অধ্যক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে ছাত্রলীগের ওই ২ নেতা অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হয়ে আসেন।

পরবর্তীতে বেলা ১২টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা পারভেজ সিকদার পনির ও জাকির হোসেন প্যারড আরো বেশ কয়েকজন দলীয় কর্মীদের নিয়ে অধ্যক্ষের কক্ষে প্রবেশ করে অধ্যক্ষ বিদ্যুত কুমার সাহাকে চেয়ার দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে তার মাথা থেঁতলে দেয়। এ সময় অধ্যক্ষের কক্ষের ভেতর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা চেয়ার ও জানালার কাচ ভাঙচুর করে।

এ রিপোর্ট লেখার সময় কলেজে শিক্ষকরা রূদ্ধদ্বার বৈঠক করছেন। এ সময় কলেজের উপাধ্যক্ষ গোলাম কিবরিয়া ফোনে জানান, এ ঘটনা নিয়েই ভেতরে বৈঠকে ব্যস্ত রয়েছেন তারা।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আশাদুজ্জামান সুমন বলেন, ঘটনার তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জাস্ট নিউজ
===========

শ্রীনগরে কলেজ অধ্যক্ষের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে ছাত্রলীগ

আরিফ হোসেন: চেয়ারে বসতে নিষেধ করায় শ্রীনগর কলেজ অধ্যক্ষের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে ছাত্রলীগ। বুধবার বেলা সাড়ে এগারটার দিকে সরকারী শ্রীনগর কলেজের অধ্যক্ষের কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। পরে মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা ও শিক্ষকদের সাথে বৈঠকে বসেছেন। এঘটনায় সাধারণ ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

শ্রীনগর কলেজ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পারভেজ শিকদার পনির ও শ্রীনগর কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন প্যারট একাদশ শ্রেনীর ভর্তির তদবীরের জন্য অধ্যক্ষের কার্যালয়ে ঢুকে সামনের সাড়ির চেয়ারে বসে। এসময় অধ্যক্ষ বিদ্যুৎ কুমার সাহা তাদেরকে বলেন সামনের সাড়ির চেয়ারে শিক্ষকরা বসবেন। তোমরা পিছনের সাড়ির চেয়ারে বস। এতে পনির ও জাকির উত্তেজিত হয়ে চেয়ারে লাথি মেরে কক্ষ থেকে বেরিয়ে যায়।

পরে তারা কলেজের অন্যান্য ছাত্রলীগ কর্মীদের নিয়ে অধ্যক্ষের কক্ষে প্রবেশ করে কক্ষে ভাংচুর চালায় ও অধ্যক্ষ বিদ্যুৎ কুমার সাহাকে মারধর করে। এতে অধ্যক্ষের মাথা ফেটে যায়। এসময় অধ্যক্ষের কার্যালয়ে উপস্থিত শিক্ষকরা হতভম্ব হয়ে যায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। অধ্যক্ষকে কলেজ ক্যাম্পাসে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুপুর আড়াইটার দিকে মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ কলেজে উপস্থিত হয়ে শিক্ষক ও ছাত্রলীগ কর্মীদের নিয়ে বৈঠকে ।


===============

ছাত্রলীগের হাতে শ্রীনগর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ লাঞ্ছিত

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর সরকারি কলেজের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা কলেজের অধ্যক্ষ বিদ্যুৎ কুমার সাহার সঙ্গে অশালীন আচরণ ও মারধর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কলেজ প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে।

চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী কলেজ অধ্যক্ষের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেছে বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে।

তবে কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি নিয়ে অযোক্তিক দাবি না মানায় ছাত্রলীগ কর্মীরা তার কক্ষে ঢুকে তাকে লাঞ্ছিত করেছে বলে স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে।

পরে খবর পেয়ে শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুর রহমান কলেজে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে, ছাত্রলীগ কর্মীদের হাতে অধ্যক্ষ লাঞ্ছিত হওয়ায় অপর শিক্ষক ও সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ছাত্রছাত্রী ভর্তি করা নিয়ে কলেজ অধ্যক্ষ বিদ্যুৎ কুমার সাহার সঙ্গে কলেজের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরোধ দেখা দেয়। এর জের ধরে বুধবার সকাল ১১টার দিকে ছাত্রলীগ কর্মীরা অনুমতি না নিয়ে অধ্যক্ষের কক্ষে ঢুকে কিছু না বলেই শিক্ষকদের চেয়ারে বসে পড়ে।

এসময় অধ্যক্ষ শিক্ষকদের চেয়ার ছেড়ে পেছনের চেয়ারে বসতে বললে তারা লাথি দিয়ে চেয়ার ফেলে দিয়ে সেখান থেকে বের হয়ে যায়।

পরে অন্য ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগ ও কলেজ ছাত্রলীগের দুই নেতা অধ্যক্ষের কক্ষে ঢুকে তাকে মারধর করে রক্তাক্ত করে।

স্থানীয়রা আরও জানায়, ঘটনার পরপর ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা কলেজ ক্যাম্পাসে অবস্থান নিয়ে শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখে। এছাড়া ক্যাম্পাসের ভেতরে গণমাধ্যম কর্মীদের ঢুকতে বাধা দেয় তারা।

দুপুরে শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মাহবুবুর রহমান জানান, চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে কলেজ অধ্যক্ষের সঙ্গে অশালীন আচরণ করা হয়েছে। বর্তমানে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তবে অধ্যক্ষকে মারধর করার কথা অস্বীকার করেছেন ওসি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর