টঙ্গীবাড়ীতে বিএনপির দুই গ্র“পের সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেফতার আতঙ্কে বেতকা গ্রাম পুরুষশূণ্য

ব.ম শামীম: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেতকা বাজারে বিএনপির দুই গ্র“পের সংঘর্ষে দোকান ভাংচুর, লুটপাট ও কমপক্ষে ২০ জন আহত হওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার আতঙ্কে বেতকা গ্রাম পুরুষশূণ্য হয়ে পরেছে। পুলিশ সুমন খান, কাউসার খান, কাজী আকবর ও সেলিম শিকদার নামের ৪ আসামীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। এর আগে এই ঘটনায় বুধবার টঙ্গীবাড়ী থানায় পাল্টাপাল্টি ৬টি মামলা এফআইআর হয়েছে। বেতকা বাজার ও বেতকা চৌরাস্তায় এখোনো পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। বাজারের সাধারণ ব্যাবসায়ীরা গ্রেফতারের ভয়ে আতœগোপন করে রয়েছে। ফলে বেশিরভাগ দোকানপাট বন্ধ রয়েছে।


এ ব্যাপরে বেতকা বাজার বনিক সমিতির সভাপতি ইউসুফ শিকদার জানান, খানঁ গ্র“পের লোকজন শিকদার গ্র“পের লোকজনের দোকান খুলতে দিচ্ছেনা। এদিকে খানঁ গ্র“পের বেতকা ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তার খানঁ জানান, বাজারের অধিকাংশ দোকান খোলা রয়েছে, কিছু দোকানদার মামলার আসামী হওয়ায় দোকান খোলেনি। টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি এসএ খালেক জানান, বেতকা বাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় আসামী গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে, এ পর্যন্ত ৪ জনকে ৩ মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। উল্লেখ্য, উপজেলার বেতকা ইউনিয়ন যুবদলের কমিটি গঠন নিয়ে বেতকা বাজার বিএনপির কার্যালয়ে মঙ্গলবার বিকেলে প্রস্তুতি সভা চলাকালিন সময়ে দুই গ্র“পের সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়।