মুন্সীগঞ্জে বিএনপির দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫

মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলার আধারা ইউনিয়নের দেওয়ানকান্দি গ্রামে দুইপক্ষের সংঘর্ষে পাঁচ জন আহত হয়েছেন। শনিবার রাত ৮টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় দুই পক্ষ এলাকায় ২০ থেকে ২৫টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করে। এলাকার আধিপত্য নিয়ে বিরোধের জের ধরে দেওয়ানকান্দি গ্রামের ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি বেলা দেওয়ান পক্ষের সঙ্গে ইউপি সদস্য ও বিএনপি নেতা গফুর দেওয়ান পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ প্রতিবেদন লেখার সময় দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া অব্যাহত ছিল বলে গ্রামবাসী জানিয়েছে।

এদিকে, পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে সংঘর্ষে ছুরিকাহত জজ মিয়াসহ অপর আহতদের গোপনে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে স্থানীয় একাধিক সূত্র দাবি করেছে।


স্থানীয় সূত্র জানায়, ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে বিএনপির দুইপক্ষেই ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দেওয়ানকান্দি গ্রামকে উত্তপ্ত করে তোলে। এ সময় আতঙ্কে গ্রামবাসী নিরাপদে আশ্রয় নেয়।

সদর থানার পরিদর্শক ইয়ারদৌস হাসান বাংলানিউজকে জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে রওনা হয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
===============

মুন্সীগঞ্জে বিএনপির দু’গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ১০, ককটেল বিস্ফোরণ

মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলে এলাকার আধিপত্য বিস্তার ও দলীয় কোন্দলের জের ধরে বিএনপির দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষকালে উভয় পক্ষ ১৫-১৬টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। আহতদের মধ্যে জজ মিয়া (৫০), আল-আমিনসহ (২৫) বাকি আহতদের গোপনে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ককটেল বিস্ফোরণে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। শনিবার রাত ৮ টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরাঞ্চল দেওয়ানকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। চরাঞ্চলের আধারা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি দেলোয়ার দেওয়ান ও অপর বিএনপি নেতা গফুর দেওয়ানের দু’গ্রুপের মধ্যে এ সংঘষ বাঁধে।

সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. ইয়ারদৌস হাসান জানান, স্থানীয় বিএনপির দু’গ্রুপের মধ্যে অভ্যন্তরীন কোন্দল রয়েছে। এলাকায় অধিপত্য বিস্তােেরর লক্ষ্যে বিএনপি ওই দু’টি গ্রুপের দলীয় নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ বাঁধে। খবর পেয়ে রাত সোয়া ১০টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি