চূড়ান্ত আন্দোলনের প্রস্ততি নিয়ে মাঠে নামছে বিএনপি!

চূড়ান্ত আন্দোলনের প্রস্ততি নিয়ে মাঠে নামছে মুন্সীগঞ্জ বিএনপি। সেই সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করে সাংগঠনিক শক্তি আরো বৃদ্ধি ও যে কোন সময় নির্বাচনের ঘোষণা এলে তার জন্য পূর্ব প্রস্ততি নেয়ারও ঘোষণা দেয়া হয়। এছাড়াও ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে সক্রিয় কমী ও বিএনপি সমর্থিত বিশিষ্ট ব্যক্তিদেরও তালিকা তৈরি করার নির্দেশ দেয়া হয়। রবিবার বিকেলে শহরের থানারপুলস্থ জেলা বিএনপির নিজস্ব কার্যালয়ে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের বিএনপির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে জরুরী সাংগঠনিক সভায় এ নির্দেশ দেয়া হয়। মুন্সীগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক ও মুন্সীগঞ্জ সদর-৩ আসন থেকে গত পাঁচবারের নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল হাই ওয়ার্ড পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের ওই নির্দেশ দেন।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন-মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও শহর বিএনপির সভাপতি এ কে এম ইরাদত মানু। সভায় জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাই, মেয়র এ কে এম ইরাদত মানু, শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম ছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ১ নং ওয়ার্ড বিএনপির ও জেলা যুবদলের সভাপতি সাবেক ভিপি তারিক কাশেম খান মুকুল, সাবেক ছাত্রনেতা ২ নং বিএনপির সভাপতি মাহবুব-উল আলম স্বপন, সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন সরকার, ৪ নং ওয়ার্ডের সভাপতি প্রবীণ নেতা মোতালেব সরদার, ৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি এডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান, ৬ নং ওয়ার্ডের সভাপতি মীর শরীফ, ৭ নং ওয়ার্ডের সভাপতি কাউন্সিলর মো. কামাল হোসেন, ৮ নং ওয়ার্ডের সভাপতি কামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক তৈয়ব আলী, ৯ নং ওয়ার্ডের সভাপতি মো. জীবন মিয়া প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- জেলা বিএনপির উপদেষ্টা আব্দুল হাকিম মিজি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক ভিপি শাহীন মিয়া, জেলা শ্রমিক দলের সদস্য সচিব আব্দুল আজিম স্বপন, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি মোখলেছুর রহমান বকুল, সদর উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক সরকার, শহর শ্রমিক দলের সভাপতি নাসিরউদ্দিন প্রমুখ।


আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের দলীয় প্রার্থী আবদুল হাই বিএনপিসহ ১৮ দলীয় জোট আহুত আগামী দিনের কর্মসূচিতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মাঠে নেমে দুর্বার আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার দিক-নির্দেশনা দেন। এছাড়াও তিনি-নেতাকর্মীদের নির্বাচনের পূর্ব প্রস্ততি হিসেবে ওয়ার্ড ভিত্তিক ভোটারদের সঙ্গেও আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। যে কোন সময় নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ হতে পারে শঙ্কায়-তাদের এ নির্দেশনা দেয়া হয়। আর বিএনপিসহ ১৮ দলীয় জোট নির্বাচনে না গেলে তাও কিভাবে মোকাবেলা করা যায়-তার জন্যও পূর্ব প্রস্ততি নিয়ে রাখার মত প্রকাশ করা হয় বলে একাধিক সূত্র জানায়।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি