৬০ জনকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয়’

pratoiবিআইডব্লিউটি’র উদ্ধার কার্যক্রমে সদ্য যুক্ত হওয়া উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয়’ এর মাধ্যমে ৬০ জন উদ্ধারকর্মীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। মুন্সীগঞ্জের চরকিশোরগঞ্জ সংলগ্ন ধলেশ্বরী নদীতে শুরু হওয়া এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলবে দুই মাসব্যাপী।

একজন আমেরিকান ও আট জন কোরিয়ান নাগরিক এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা’র ডুবুরী আব্দুল মালেক প্রত্যয়’র ডুবুরী হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন।

আধুনিক কৌশলে কিভাবে ডুবে যাওয়া লঞ্চ বা জাহাজ উদ্ধার করতে হবে তার কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে নৌ বাহিনীর সদস্যসহ ৬০ উদ্ধারকর্মীকে প্রশিক্ষণে বিস্তারিত শেখানো হচ্ছে।
pratoi
ডুবুরী আব্দুল মালেক বাংলানিউজকে জানান, কর্মপদ্ধতি শেখানোর জন্য ধলেশ্বরী নদীর তীর সংলগ্ন স্থানে একটি পুরাতন জাহাজ ডুবানো হয়েছে। এ ডুবন্ত জাহাজটি কিভাবে উঠাতে হবে, নদীর তলদেশে গিয়ে কিভাবে রশি দিয়ে আটকাতে হবে, প্রশিক্ষণে তা শেখানো হচ্ছে।

উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়কে সাহায্যকারী টাগ জাহাজ দুরন্ত’র কোয়াটার মাস্টার মো. মমিন জানান, এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম আধুনিক ও ডিজিটাল পদ্ধতিতে শেখানো হচ্ছে। উদ্ধার কার্যক্রমের বিষয়টি কম্পিউটারে মনিটরিং করা হচ্ছে।

কার্যক্রমের সমন্বয়কারী ও উদ্ধারকারী জাহাজ রুস্তম ও নির্ভীক’র কমান্ডার মো. ফজলুর রহমান জানান, গত ২২ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ১৭ জুন পর্যন্ত চলবে। ১৪ জন নৌবাহিনীর সদস্য ও ৪৬ জন বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তা কর্মচারীসহ মোট ৬০ জনকে এ প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া উদ্বোধন কার্যক্রমের জন্য এক সপ্তাহ প্রশিক্ষণ বন্ধ থাকায় এ কার্যক্রম আরো ১০ দিন বৃদ্ধির চেষ্টা চলছে বলেও তিনি জানান।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
================

মুন্সীগঞ্জের মেঘনায় উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয়ে’ ৬০জন উদ্ধারকর্মীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে

মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের মাওয়ায় উদ্ভোবন হওয়া বিআইডব্লিউটি’র উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয়’ এ ৬০ জন উদ্ধারকর্মীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া ও চাঁদপুরের ষাটনলের মাঝামাঝিস্থ মেঘনা নদীতে এ প্রশিক্ষন শুরু হয়েছে। এ প্রশিক্ষন চলবে ২ মাস । পরীক্ষামূলকভাবে ১শ’ফুট দৈর্ঘ্য, ২৫ ফুট প্রস্ত ও ৭ফুট চওড়া একটি পল্টুন বসানো হয়েছে।

উদ্ধারকারী জাহাজ রুস্তমের কমান্ডার মো. ফজলুর রহমান জানান, গত ২২ এপ্রিল এ প্রশিক্ষন শুরু হয়েছে। প্রশিক্ষণের কার্যক্রম চলবে ১৭ জুন পর্যন্ত । নৌবাহিনীর ১৪ জন সদস্য ও ৪৬ জন বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তা কর্মচারীকে এ প্রশিশক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এর আগে ‘প্রত্যয় ও নির্ভীক’ দক্ষবাবে চালানোর জন্য বিআইডব্লিউটিএ’র ১৬ জন কর্মকর্তাকে সরকারিভাবে কোরিয়া থেকে প্রশিক্ষন দিয়ে আনা হয়েছে। এছাড়া, গত ২৮মে উদ্বোধন এর উদ্ভোবন করা হয়। এ জন্য এক সপ্তাহ প্রশিক্ষণ বন্ধ ছিল। কার্যক্রম বন্ধ থাকায় প্রশিক্ষনের মেয়াদ আরো ১০ দিন বৃদ্ধি করা হতে পারে। বিআইডব্লিউটিএ সূত্র মতে, এর প্রশিক্ষক হিসেবে রয়েছেন, আমেরিকার ১জন ও কোরিয়ান ৮ জন নাগরিক।


এদিকে প্রত্যয়ের কমান্ডার নিযুক্ত এখনো চূড়ান্তভাবে নিযুক্ত হয়নি। তবে, বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক আব্দুস সালাম প্রাথমিকভাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা’র ডুবুরী আব্দুল মালেক প্রত্যয়ে ডুবুরী হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন। নদী বা সমুদ্রে লঞ্চ, জাহাজ, কার্গোসহ বড় ধরনের নৌযান ডুবে গেলে তা তরিৎগতিতে কিভাবে উদ্ধার করতে হবে, সে কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে প্রশিক্ষন দেয়া হচ্ছে। ডুবুরী আব্দুল মালেক জানান, প্রশিক্ষনের অংশ হিসেবে ধলেশ্বরী নদীর তীর সংলগ্ন স্থানে একটি পুরাতন জাহাজ ডুবানো হয়েছে। এ ডুবন্ত জাহাজটি কিভাবে উদ্ধার করতে হবে, নদীর তলদেশে গিয়ে কিভাবে রশি দিয়ে আটকাতে হবে, প্রশিক্ষণে তা শেখানো হচ্ছে। উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়কে সাহায্যকারী টাগ জাহাজ দুরন্ত’র কোয়াটার মাস্টার মো. মমিন জানান, এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম আধুনিক ও ডিজিটাল পদ্ধতিতে শেখানো হচ্ছে। উদ্ধার কার্যক্রমের বিষয়টি কম্পিউটারে মনিটরিং করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২৮ মে বিকেল ৩টা ২০ মিনিটের সময় পদ্মা সেতু প্রকল্প এলাকা পরিদর্শনসহ মাওয়া নদী বন্দর এলাকায় প্রায় ৪শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বিআইডব্লিউউটিএ’র ২৫০মেট্রিক টন ক্ষমতা সম্পন্ন ২টি উদ্ধারকারী জাহাজ “প্রত্যয় ও “নির্ভীক” আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা ও রুস্তমের ধারণ ক্ষমতা মাত্র ৫০ মেট্রিক টন।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি