গ্রেফতার গুঞ্জনে সিরাজদিখানে হেফাজতে কর্মীদের তাণ্ডব

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের কুচিয়ামোড়া-সৈয়দপুর-রাজানগর সড়কে গাছ ফেলে ও বিভিন্ন অস্ত্রে-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে সেখানে তাণ্ডব চালিয়েছে হেফাজতে নেতাকর্মীরা। সোমবার দুপুরের পর থেকে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা ও মধুপুরের পীর আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে এ তাণ্ডব চালানো হয়।

এসময় হেফাজতে নেতাকর্মীরা জুইত্যা, বল্লম, টেটাঁসহ বিভিন্ন ধারালো অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে রাজানগর ও মধুপুর এলাকায় এক ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। এর ফলে কুচিয়ামোড়া-সৈয়দপুর-রাজানগর সড়ক দিয়ে যানবাহন ও নিরীহ জনসাধারণের যাতায়াত পথ বন্ধ হয়ে যায়।


জানা যায়, হেফাজতের আমির শফি আটক ও মধুপুরের পীর আব্দুল হামিদকে গ্রেফতার করতে আসছে পুলিশ- এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়লে মসজিদের মাইক থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়।

এরপরই রাজানগর ইউনিয়নের সৈয়দপুর, নয়ানগর ও মধুপুর গ্রামের শত শত হেফাজতে কর্মী সমর্থক জুইত্যা, বল্লম, টেটাঁসহ বিভিন্ন অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে এলাকায় উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি করে তুলেছে। তাদের সঙ্গে হেফাজতের নারী সমর্থকরা রয়েছে বলেও জানা গেছে।

প্রত্যদর্শীরা জানায়, সিরাজদিখানের মধুপুরের পীর ও হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল হামিদকে যাতে পুলিশ গ্রেফতার করতে গ্রামে ঢুকতে না পারে তা ঠেকাতে হেফাজতে নেতাকর্মীরা গাছ কেটে সড়কের মাঝে ফেলে দিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে দিয়েছে।


সূত্র আরও জানায়, সোমবার দুপুরের পর থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত উত্তেজিত হেফাজতে কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রেখে কুচিয়ামোড়া-সৈয়দপুর- রাজানগর সড়ক দখল করে রেখেছে। এর ফলে এ সড়ক দিয়ে কোনো যানবাহন ও সাধারণ মানুষ চলাচল করতে পারছে না।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মাহবুবুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, হেফাজতে নেতা পীর আব্দুল হামিদকে গ্রেফতার করা হবে এমন খবরের তারা উত্তেজিত হয়ে উঠেছে। ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি আরও অবনতি হতে পারে এমন আশঙ্কায় পুলিশ ঘটনাস্থলের অদূরে সতর্কাবস্থায় রয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম