সিরাজদিখানে সাবেক ইউপি মেম্বারের বাড়ীর মালামাল ক্রোক!

বুধবার সাংবাদিক মোক্তার হোসেনকে গুলি করে হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী সাবেক ইউপি সদস্য হেলাল মিয়ার পুত্র শীর্ষ সন্ত্রাসী লিয়াকত ও হেলাল মিয়ার ছোটভাই মহিউদ্দিনসহ চার জনের বাড়ীর মালামাল ঢিলেঢালা ভাবে দায় সারার জন্য ক্রোক করেন সিরাজদিখান থানার এস.আই শহীদ।

উক্ত মামলার আসামীরা কোর্টে অদ্যবধি হাজিরা না দেওয়ার কারণে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট, সিরাজদিখান আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা ও মালামাল ক্রোকের নির্দেশ দেন।

উক্ত নির্দেশ পালনে দায় সারার জন্য সিরাজদিয়ান থানা পুলিশ লিয়াকত ও মহিউদ্দিনের বাড়ীর সামান্য কিছু মালামাল সিরাজদিখান থানায় নিয়ে আসেন এতে এলাকার জনগণ ক্ষিপ্ত হলেও কিছুটা স্বস্তি ফিরে পেয়েছে।

মালামাল ক্রোকের সময় মামলার বাদীর পক্ষের লোকজনকে সামনে আসতে দেয়নি পুলিশ।

সন্ত্রাসী লিয়াকত ও মহিউদ্দিন বাহিনী পুলিশের উপর হামলার, রাতে বাস ডাকাতি, সংখা লঘু নিরীহ মেয়েদের ধর্ষণসহ এমন কোন অপকর্ম নেই যা তারা করেনা।

তুলশীখালীর লোকজন হেলাল মেম্বারের পরিবারের নিকট জিম্মি হয়ে পড়েছে। লিয়াকত ও মহিউদ্দিন গং ৩/৪ টি মামলার প্রধান আসামী এবং তারা পলাতক থাকায় তাদের নামে অপর মামলা গুলোর গ্রেফতারী পরয়ানা রয়েছে।

তাদের গ্রেফতার ও তাদের পরিবারের এরূপ অপকর্ম বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করে তুলশীখালী এলাকার জনগণসহ আশে পাশের এলাকার জনগণ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট স্মারক লিপি পেশ করবেন বলে জানিয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ নিউজ