৫০ গুপ্ত হত্যা, মুন্সীগঞ্জের যেখানে-সেখানে পাওয়া যাচ্ছে লাশ

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জে লাশের ছড়াছড়ি। যেখানে-সেখানে পাওয়া যাচ্ছে লাশ। প্রায় প্রতিদিনই মুন্সীগঞ্জের বিভিন্ন খালে-বিলে, নদী-ডোবায় ভেসে ওঠছে লাশ। দীর্ঘ হচ্ছে লাশের মিছিল। গত ২৮ মাসে জেলায় খুনের শিকার হয়েছেন অন্তত ১০৪ জন। এর মধ্যে ৫০ জনের বেশি গুপ্তহত্যার শিকার। পরিচয়হীন লাশ আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলাম ও পৌরসভার মাধ্যমে দাফন করা হয়। হাইওয়ে সড়কগুলোর পাশেও অজ্ঞাতপরিচয়ের লাশ পাওয়া যাচ্ছে। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, সন্ত্রাসীরা নিরাপদ স্থান হিসেবে বেছে নিয়েছে মুন্সীগঞ্জ জেলাকে। অন্য জেলার লোকদের হত্যা করে লাশ গুম করার লক্ষ্যে মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদী, রাস্তার পাড়ে ও বিলে-ঝিলে লাশ রেখে যায় ঘাতকরা।

গত ১৪ই এপ্রিল সকালে সিরাজদিখান উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের পূর্ব-কয়রাখোলা গ্রামের আক্কাস মোল্লার বাড়ির পুকুর পাড়ের কড়ই গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় অজ্ঞাতপরিচয় এক মহিলার (৩০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তার গলায় ওড়না প্যাঁচানো কালো দাগ ও শরীরে জখমের চিহ্ন ছিল। গত ১৭ই মার্চ সকালে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে অজ্ঞাতনামা (৪৫) এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে রাতে তার স্বজনরা মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে এসে লাশ শনাক্ত করে। চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলার রায়েরকান্দি গ্রামের প্রয়াত খালেক মিয়ার ছেলে ফারুক আহমেদের লাশ ছিল এটি। ফারুক আল্লাহর দান নামে বালুবাহী বাল্কহেডের সুকানি ছিলেন। এর আগে ১৫ই মার্চ রাতে ফারুক নিখোঁজ হয়। গত ২৬শে ফেব্রুয়ারি মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পড়ে থাকা ২ যুবকের লাশ বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করা হয়। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভা কর্তৃপক্ষ পৌরসভার কাটাখালি কবরস্থানে লাশ দাফন করে।

এর আগে ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে গত ১৯শে ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে শহরের হাটলক্ষ্মীগঞ্জ বেড়িবাঁধ এলাকা ও তার সামান্য দূরে পরদিন ২০শে ফেব্রুয়ারি মোল্লারচর এলাকার ধলেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাতনামা ২টি লাশ মুক্তারপুর নৌ-পুলিশ উদ্ধার করে। ৩টি খুন-গুম হত্যাসহ মুন্সীগঞ্জের বিভিন্ন স্থান থেকে ২৪শে জানুয়ারি একদিনে ৬টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। খুন-গুম হত্যার মধ্যে সিরাজদিখানে ২ ও শ্রীনগরে এক যুবক রয়েছে। এদের ৩ জনকেই গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। গত ২৪শে জানুয়ারি সিরাজদিখান উপজেলার রশুনিয়া ব্রিজের নিচ থেকে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ইব্রাহিম, এর ঠিক ১০০ গজ অদূরে দুপুর ১২টার দিকে গুলিবিদ্ধ কুদ্দুসের লাশ ও দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী শ্রীধরপুর এলাকার রাস্তার পাশে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মাসুদ খানের লাশ পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয়ের লাশ হিসেবে উদ্ধার করে। ৩ জনকেই খুব কাছ থেকে মাথার পেছনের দিক থেকে পেশাদার খুনিরা খুন করে লাশ ফেলে রেখে যায়। তাদের প্রত্যেকের গুলিই মাথা ভেদ করে বেরিয়ে যায়। তাদের চোখ-মুখ নতুন গামছা দিয়ে বাঁধা ছিল।

নিহত ইব্রাহিম মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার নওপাড়া গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে। সে ঢাকার জুরাইনের দারোগা বাড়ি রোডে মামা সালাহউদ্দিনের বাসায় থাকতো। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের আমবাগিচা এলাকার বাসিন্দা কুদ্দুস মিয়া (৪০) হচ্ছে মাদারীপুরের হুগলি এলাকার হাজী আব্দুল খালেক ব্যাপারীর ছেলে। অপর যুবক মাসুদ ওরফে রাঢ়ী মাসুদ (৩০) দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের আমবাগিচা এলাকার মীর জাহান খানের ছেলে। ইব্রাহিম, কুদ্দুস ও মাসুদ ওরফে রাঢ়ী মাসুদ ঢাকার কদমতলীতে থার্টি ফার্স্ট নাইটে সংঘটিত আওয়ামী লীগ নেতা ইসমাইল হত্যা মামলার আসামি বলে সিরাজদিখান থানার ওসি শেখ মাহবুবুর রহমান দাবি করেছেন। অথচ নিহতের স্বজনরা বলছেন, সে নিরপরাধ। হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দিতেই পুলিশ এ কথা বলছে বলে তারা অভিযোগ করেন। গত ২১শে জানুয়ারি সিরাজদিখানের তেলিপাড়া গ্রামের একটি জমি থেকে অজ্ঞাত তরুণীর (২২) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। গত ১৮ই জানুয়ারি রাতে জনতার গণপিটুনির শিকার হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডাকাত সদস্য আবু হাসান (২৮) মারা যায়। এর আগের দিন রাতে টঙ্গিবাড়ীর রাউৎভোগ এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে জনতা আটক করে তাকে গণপিটুনি দেয়।

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত বছর ৩০শে ডিসেম্বর টঙ্গিবাড়ী উপজেলার পুরা গ্রামের সিএনজি চালক আনোয়ার হোসেনের আড়াই বছরের শিশু লিখনকে হত্যা করে বাড়ির পাশের একটি ডোবায় ফেলে রাখা হয়। ২৭শে ডিসেম্বর কাঠপট্টি পুরাতন লঞ্চঘাট এলাকার ধলেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের (৩৪) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। ১৯শে নভেম্বর মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদী ও একটি ডোবা থেকে নববধূসহ ২ জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। বিয়ের ৪ দিনের মাথায় সদর উপজেলার নৈপুকুরপাড়ের একটি ডোবার কচুরিপানার ভেতর থেকে নববধূ আন্না আক্তারের (১৮) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। বিয়ের ২ দিন পর গত ১৭ই নভেম্বর বিকাল ৪টার দিকে সদর উপজেলার মিরকাদিম পৌরসভার রামগোপালপুর গ্রামের খোকন মিয়ার ছেলে সৌদি আরব প্রবাসী স্বামী মুক্তার হোসেনের ফোন পেয়ে নববধূ আন্না বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়।

একই দিন বেলা পৌনে ১১টার দিকে ইউসুফ আলী (২৮) নামে এক বাবুর্চির লাশ সদর উপজেলার কাঠপট্টির পুরাতন লঞ্চঘাট এলাকা থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। নিহত ইউসুফ লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব মাছিমপুর গ্রামের নূরু মিস্ত্রির ছেলে। গত ১৭ই নভেম্বর বেলা ১১টার দিকে সে নিখোঁজ হয়। গত ১৫ই নভেম্বর শ্রীনগর উপজেলার বাঘড়া ইউনিয়নের চিনারখোলা গ্রামে ডাকাতের গুলিতে সৌদি প্রবাসী ইয়াসিন ভূঁইয়ার স্ত্রী শাহীনুর বেগম (৩৭) নিহত হয়। ৮ই নভেম্বর বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গজারিয়া উপজেলার তেতৈতলা গ্রামের আনোয়ার সিমেন্ট সংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে অজ্ঞাতনামা এক যুবক (৩৫)-এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত ৬ই নভেম্বর সকালে শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী ইউনিয়নের শিবরামপুর এলাকা থেকে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক নারী (৪৮)-এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত ২রা নভেম্বর রাত ৯টার দিকে শ্রীনগর উপজেলার ব্রজেরপাড়া গ্রামে সালিশি বৈঠকে জুতাপেটায় গোপাল পোদ্দার নামে (৫৩) এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী মারা যায়। রান্নাঘর ব্যবহার করা নিয়ে সালিশি বৈঠক চলাকালে এ তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ২ সহোদর চিত্তরঞ্জন দাস (৫০) ও বিষ্ণু (৪০)কে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।


গত ১লা নভেম্বর রাত ১০টার দিকে গজারিয়ার কালীপুরা গ্রামের শরাফত আলী (৬৮) প্রতিপক্ষের সশস্ত্র হামলায় আহত হয়ে হাসপাতালে মারা যায়। এর আগে গত ২৮শে অক্টোবর পূর্ব বিরোধের জের ধরে ষষ্ঠীতলা গ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম খান রতন ও নিহত শরাফত আলী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। গত ২৫শে অক্টোবর দুপুরে টঙ্গিবাড়ী উপজেলার আব্দুল্লাহপুর এলাকায় গ্রামীণফোন ইজিলোডের ১০ লাখ টাকা ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার পথে কান্দাপাড়াস্থ কুণ্ডেরবাজার এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ছিনতাইকারীদের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় পুলিশের গুলিতে এক ছিনতাইকারী নিহত ও অপর ছিনতাইকারী গুলিবিদ্ধ হয়ে অস্ত্র-গুলিসহ গ্রেপ্তার হয়। এ সময় লুণ্ঠিত টাকার মধ্যে ৫ লাখ ২৩ হাজার টাকা পুলিশ উদ্ধার করে। টঙ্গিবাড়ীর পুরা বাজার এলাকায় দুর্গাপূজা দেখে বাড়ি ফেরার পথে সহপাঠীদের হামলায় আহত হয়ে দ্বিতীয় শ্রেণীর স্কুলছাত্র শাওন (১০) গত ২৪শে অক্টোবর মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে মারা যায়।

২রা অক্টোবর সকালে শহরের কোটগাঁও গ্রামের দুলাল হোসেন (৪০) নিখোঁজ থাকার পর কেওয়ার একটি খাল থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। ২ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ১৯শে অক্টোবর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে লৌহজং পদ্মা রিসোর্টের নৈশপ্রহরী জয়নাল আহমেদ (৫৩)-এর মৃতদেহ টঙ্গিবাড়ীর হাসাইল পদ্মা নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করে। তার বাড়ি লৌহজং উপজেলার হাট ভোগদিয়া গ্রামে। গত ১৮ই অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টার দিকে জমি-জমার বিরোধকে কেন্দ্র করে লৌহজংয়ের কাজীর পাগলা গ্রামে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও রেন্ট-এ কার ব্যবসায়ী মোবারক হোসেন খান (৫২)কে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করে। গত ১৫ই অক্টোবর দুপুরে মিরকাদিমের কাঠপট্টি এলাকার পুরাতন লঞ্চঘাট সংলগ্ন ধলেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাতনামা এক যুবকের (২০) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। গত ১০ই অক্টোবর দিবাগত রাতে শ্রীনগর উপজেলার পশ্চিম কামারগাঁও গ্রামের ছাপড়া ঘরে ভিক্ষুক দম্পতি কিমাজউদ্দিন (৭৮) ও তার স্ত্রী কদবানু ওরফে মরার মা (৬৮)কে গলাকেটে হত্যা করা হয়।


এ হত্যার রহস্য আজও পুলিশ উদ্ধার করতে পারেনি। গত ৬ই অক্টোবর রাতে শ্রীনগরে মাদরাসা ছাত্র সজীব (১২)কে গলাকেটে হত্যা করে। ওইদিন রাতেই মাদ্‌রাসা সংলগ্ন এলাকা থেকে তার মস্তকবিহীন লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। পরদিন মাদরাসা সংলগ্ন পুকুর থেকে তার মস্তক (মাথা) উদ্ধার করা হয়। গত ৮ই আগস্ট টঙ্গিবাড়ীর বালিগাঁও বাজারে বিএনপির পরিত্যক্ত কার্যালয় থেকে নাসির (২৪) নামে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। গত ৩১শে জুলাই বাঘড়ার ফুলতলা গ্রামে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি প্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন (২৫) গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকার বক্ষব্যাধি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। ঢাকার শাহজাহানপুর থেকে ২ বন্ধু অপহরণ হবার ৮দিন পর গত ২৯শে জুলাই রাতে মুন্সীগঞ্জ শহর উপকণ্ঠের মুক্তারপুর সেতু সংলগ্ন নদী থেকে এক বন্ধু পারভেজ আলমের (২০) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে।

পরদিন ৩০শে জুলাই সকালে লাশ শনাক্তের পর মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত শেষে নিহতের বাবা মো. কবির লাশ নিয়ে গেছেন। নিহতের বাড়ি ভোলা সদর উপজেলার সামনধার এলাকায়। তারা ২৮৬/এ খিলগাঁও, সিপাহীবাগ এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। এর আগে গত ২৪শে জুলাই অপর বন্ধু হাসান বান্না শুভ’র (২৪) লাশ সিরাজদিখানের মরিচা ব্রিজ সংলগ্ন ইছামতি নদী থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। পরদিন ২৫শে জুলাই নিহতের স্বজনরা মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে লাশ শনাক্ত করে নিয়ে যায়। তার পিতার নাম আনিসুজ্জামান ও মা সাবিয়া শোভা বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের মতিঝিল থানার সভাপতি। ঢাকার রাজারবাগ এলাকায় তারা ভাড়া বাসায় বসবাস করেন।


গত ২৪শে জুলাই বেলা ১১টার দিকে শ্রীনগরের হাসাড়া এলাকায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের (৩০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত ১০ই জুন সিরাজদিখানের মরিচা খারশুর এলাকার একটি ঝোপ থেকে দেহ থেকে মস্তক, হাত-পা বিচ্ছিন্ন অজ্ঞাতনামা এক যুবকের (২৪) ১১ টুকরো লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। টুকরোগুলো ৬টি ছোট প্লাস্টিকের বস্তা থেকে উদ্ধার করা হয়। গত ৯ই জুন শ্রীনগরের বাঘড়া এলাকায় জমি-জমার বিরোধ নিয়ে ওরশেদ মিয়া (৭০) নামে এক বৃদ্ধকে দু’টুকরো করে হত্যা করা হয়। গত ৪ঠা জুন রাতে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে টঙ্গিবাড়ীর কাঠাদিয়া-শিমুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি রিপন ফকিরকে রক্তাক্ত জখম করে। পরদিন ৫ই জুন সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

গত ৫ই এপ্রিল শহরের যোগিনীঘাট এলাকার খাল থেকে হাত-পা বিচ্ছিন্ন মস্তকবিহীন অজ্ঞাতনামা এক যুবকের (৩২) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। গত ২১শে ফেব্রুয়ারি সকালে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রতনপুর আনসার ক্যাম্পের পাশে একটি ডোবা থেকে অর্ধগলিত অজ্ঞাতনামা এক যুবকের (২৩) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। পরে শহরের গনকপাড়া এলাকার নাসিরের লাশ হিসেবে শনাক্ত করা হয়। গত ৭ই ফেব্রুয়ারি নবজাতকসহ অজ্ঞাতনামা ২ জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কামারগাঁও এলাকার পদ্মা নদী থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের (৪০) ও কামারগাঁও গ্রামের সরিষা ক্ষেত থেকে এক অজ্ঞাত নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে শ্রীনগর থানা পুলিশ। গত ২১শে জানুয়ারি আলভী চৌধুরী (৬) নামের এক শিশুকে হত্যার পর ফিরিঙ্গিবাজার মসজিদের ভিতরে সিঁড়ির নিচ থেকে তার লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। গত ১৬ই জানুয়ারি কেয়টখালি গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী শাহ আলমের ভারসাম্যহীন স্ত্রী তার ৬ মাসের শিশু পুত্র সামিরকে গলা কেটে হত্যা করে।

বিয়ের দু’বছরের মাথায় মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার রাঢ়ীখাল গ্রামে ২০১১ সালের ২৫শে ডিসেম্বর সকালে গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় রেশমা আক্তার (২০) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। গৃহবধূ রেশমাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে মামলার বাদী আনোয়ার হোসেন কনক দাবি করেছেন। ২০১১ সালের ২২শে ডিসেম্বর জেলার শ্রীনগর উপজেলার ওমপাড়া এলাকায় মহাসড়কের পাশে নিখোঁজ লঞ্চ মিস্ত্রি বিলাল ব্যাপারীর (৪০) লাশ উদ্ধার করা হয়। তার বাড়ি সিরাজদিখান উপজেলার পশ্চিম শিয়ালদি। তিনি মাওয়ায় লঞ্চের ইঞ্জিন মেরামতের মিস্ত্রি ছিলেন। ২০শে ডিসেম্বর গজারিয়া উপজেলার দড়ি বাউশিয়া এলাকা থেকে অজ্ঞাতপরিচয়ের এক যুবকের লাশ পুলিশ উদ্ধার করে।

২০১১ সালের ১৩ই ডিসেম্বর দুপুর ১টার দিকে মুক্তারপুর নৌ-ফাঁড়ির ধলেশ্বরী নদীতে এক কিলোমিটার এলাকার মধ্যে ৩টি অজ্ঞাতপরিচয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় বাজারের কাঁচামাল ব্যবসায়ী মঞ্জু মুন্সীর পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে। একই বছর ১০ই ডিসেম্বর একই দিন মীরকাদিম পৌরসভার গোপনগর এলাকায় এক নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ৮ই ডিসেম্বর ধলেশ্বরী নদীর মোলারচর এলাকা থেকে অজ্ঞাতপরিচয়ের ২টি লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। পরদিন ৯ই ডিসেম্বর এদের মধ্যে ১ জনের লাশ শনাক্ত হয়। নিহত আল-আমিন ঢাকা ৫০ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রদলের সভাপতি।

৬ই ডিসেম্বর মুন্সীগঞ্জ সদর ও শ্রীনগর ২টি গুপ্ত হত্যা হয়। সদর উপজেলার চরাঞ্চল শিলই ইউনিয়নের আকাল মেঘ গ্রামের ইউপি সদস্য আমজাদ ব্যাপারীর ছেলে মো. ওয়ালিদকে (৩৮) হত্যার পর লাশ গুম করা হয়। ৫ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ৬ই ডিসেম্বর সন্ধ্যায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের চরবেশনাল গ্রামের একটি ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত ৫ই ডিসেম্বর লৌহজং উপজেলার হারিদিয়া গ্রামের মৃত নাদু মিয়ার ছেলে শামীম (৩০) ঢাকার মিরপুরের ভাইয়ের বাসা থেকে গ্রামের বাড়িতে আসার পথে নিখোঁজ হয়। পরদিন ৬ই ডিসেম্বর শ্রীনগর উপজেলার হরপাড়া জামে মসজিদের টয়লেট থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

গত ১০ই নভেম্বর একই দিন সকাল ১০টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে অজ্ঞাতপরিচয় (৫০) এক বৃদ্ধের লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী খাল থেকে নিখোঁজ হওয়ার ৩ দিন পর গত ২৪শে অক্টোবর সকালে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র অপু খন্দকারের (১১) লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। শহরের উত্তর ইসলামপুর গ্রামের জামাল হোসেন (৪০) ৯ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ২৩শে অক্টোবর বিকালে তার বস্তাবন্দি লাশ ধলেশ্বরী নদী থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। গত ১৫ই অক্টোবর ভোরে মুন্সীগঞ্জ বালু মহালের কালেকশন করতে গিয়ে জামাল নিখোঁজ হয়। গত ১৫ই অক্টোবর জেলার শ্রীনগর, লৌহজং ও সদর উপজেলায় অজ্ঞাতপরিচয় ৩ জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

ওইদিন সকালে ক্ষেতেরপাড়া এলাকা থেকে ১৩-১৪ বছরের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওইদিন দুপুরে শহর উপকণ্ঠ কাঠপট্টি এলাকায় ধলেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাতপরিচয়ের এক তরুণীর (২২) লাশ উদ্ধার করে মুক্তারপুর নৌ-ফাঁড়ি পুলিশ। একইদিন শ্রীনগরের কামারগাঁও এলাকায় পদ্মা নদীতে অজ্ঞাতপরিচয়ের আরও এক যুবকের (২২) ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত ১৩ই অক্টোবর বিকালে শহরের উত্তর ইসলামপুর এলাকায় ধলেশ্বরী নদী থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ৪ঠা অক্টোবর ভোরে লৌহজংয়ের সাইনহাটি গ্রামের ডোবা থেকে এক নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নবজাতক সন্তানকে হত্যার পর লাশ গুম করার চেষ্টাকারী পিতা রাসেল (১৮)কে পুলিশ গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠায়। পুরান ঢাকার দয়াগঞ্জ এলাকা থেকে অপহৃত রাজিবের গুলিবিদ্ধ লাশ ২২শে জুলাই ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সিরাজদিখানের এক ডোবা থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। মুখ ও হাত নতুন গামছা দিয়ে বাঁধা অবস্থায় লাশটি পড়ে ছিল।

মানবজমিন