মুন্সীগঞ্জ জেলাবাসীর পহেলা বৈশাখ উদযাপন

বাঙালি জাতির শেকড়ের সংস্কৃতি ও প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ উদযাপন করেছে মুন্সীগঞ্জবাসী। শনিবার চৈত্র সংক্রান্তির মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে বাংলা বছর ১৪১৯ বঙ্গাব্দ। রোববার সূর্যের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় বাংলা নতুন বছর ১৪২০ বঙ্গাব্দ বরণের আয়োজন। ১৪২০ বঙ্গাব্দ বরণকে কেন্দ্র করে নানা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ বিভাগ, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাব, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান।

জানা গেছে, বাংলা বর্ষবরণে জেলা প্রশাসন স্থানীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন নিয়ে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে। রোববার সকাল ৭টায় জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদলের নেতৃত্বে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, পরে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

অন্যদিকে, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান উদযাপনের আহ্বায়ক সোনিয়া হাবিব লাবনী ও সদস্য সচিব সুজন হায়দার জনি বাংলানিউজেক জানান, ‘বৈশাখ মানে-অতীত ভুলে নতুনের পথে চলা, বৈশাখ মানে-হিংসা বিদ্বেষ ভুলে মুক্তির পথে চলা’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাব দিনব্যাপী কর্মসূচি হাতে নেয়।

এর মধ্যে সকাল সাড়ে ৭টায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, সকাল সাড়ে ৮টায় পান্তা-ইলিশ ভোজ, সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বৈশাখী উৎসব ও বিকেল ৫টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এছাড়া ফাইভ স্টার স্পোটিং ক্লাব মুন্সীগঞ্জ এর উদ্যোগে সকাল সাড়ে ৬টায় মিনি সাইকেল রেস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলার ৬টি উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নানা আয়োজনে বর্ষবরণ করা হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহীদুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানস্থল ছাড়াও কোথাও যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে জন্য পুলিশের টহল জোরদারসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশের তল্লাশি চৌকি (চেকপোস্ট) বসানো হয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম