আমার দেশে ব্লগারদের লেখা ছাপিয়ে ইসলামকে কতদূর এগিয়ে নিয়েছে

mp gazariaএম. ইদ্রিস আলী
ব্লগারদের ইসলাম বিরোধী লেখা কতজন জানতো, কেউ জানতো না, আমার দেশ পত্রিকায় ছাপিয়ে উম্মাদনা সৃষ্টি করা হয়েছে। তিনি আমার দেশ পত্রিকার উদ্দেশ্যে বলেন, আমার দেশে ব্লগারদের লেখা ছাপিয়ে ইসলামকে কতদূর এগিয়ে নিয়েছে। ইসলাম হলো আল্লাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্ম। এজন্য ভিন্ন ধর্মের লোক ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে। অযথা অপপ্রচার করেছে আমার দেশ পত্রিকা। ব্লগারদের ইসলামের বিরুদ্ধে লেখাগুলো আমার দেশ পত্রিকায় প্রকাশ করে মুসলমানদের মধ্যে উম্মাদনা সৃষ্টি করার ফলে যে লোকজন নিহত হয়েছেন তার দায়ভার কে নেবে? মাহনবী (সা:) এর সময় ইসলাম বিদ্বেষী যারা ছিল তারা এক দিনের জন্যেও নবী ও আল্লাহকে নিয়ে কটুউক্তি করেছেন বহু রকম অপবাদ আল্লাহ ও মুহাম্মদ (সা:) এর বিরুদ্ধে দিয়েছেন।

ইসলাম বিদ্বেষীরা যতই কটুউক্তি করুক ইসলামের তাকে কি ক্ষতি হবে। যুগে যুগে এ ধরনের কটুউক্তি কারীদের খোঁজ পাওয়া গেছে। এমনকি টুইন টাওয়ার হামলায় ২৯৯৮জন লোক মারা গেছে তাই ইহুদী এক পাদ্রী ১টি কুরআন পুড়িয়েছে সে ঐ দিন আরো ২৯৯৭টি কুরআন পুড়াবে।
প্রধান অতিথি এম. ইদ্রিস আলী বলেন, ২৯৯৮টি কেন ২৯ হাজার কুরআন পুড়লেও ইসলামের কিছু আসে যায় না। প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এম. ইদ্রিস আলী মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলা পরিষদ মাঠে শনিবার বেলা ১১টায় প্রাথমিক শিক্ষা উৎসব ও বিজ্ঞান প্রযুক্তি মেলার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
mp gazaria
তিনি আরো বলেন, পৃথিবীতে যতগুলো ধনী দেশ রয়েছে সে সকল দেশের জনগণের চেয়ে বাংলাদেশের জনগণ অনেক সুখি এবং এগিয়ে। বাংলাদেশের একটি বড় দল দ্যার্থহীনভাবে হেফাজতে ইসলামের ১৩দফা দাবীর প্রতি যেভাবে দ্যার্থহীন সমর্থন দিয়েছেন এটা এদেশের জন্য একটি অশনি সংকেত। জামায়াত ও হেফাজতে ইসলামের দাবী মেনে নেয়া হলে নারীদের ঘরে ফিরে যেতে হবে। চাকুরী করতে পারবে না, শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবে না। গার্মেন্সে চাকুরী করতে পারবে না আর যদি এটা হয় সেটা হবে সবচেয়ে বড় দু:খজনক।


এম. ইদ্রিস আলী প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরো বলেন, বাংলাদেশ যে প্রগতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে তার প্রতিবন্ধকতা করা যাবে না।
ব্লগারদের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ইসলাম ধর্ম বিগত ১৪০০ বছর যাবৎ এদেশে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত আছে। ইসলাম প্রচার করতে যেয়ে আমাদের নবীকে অনেক নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে।

প্রধান অতিথি বলেন, ৪২ বছর হয়েছে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে কিন্তু নারী শিক্ষায় পূর্ববর্তী সরকারগুলো মনোযোগ দিতে ব্যার্থ হয়েছে।
ব্লগারদের ইসলামের কটুউক্তির বিষয়ে বলেন, প্রচলিত আইনেই এদের বিচার করা হবে।

বিশেষ অতিথি জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল বলেন, চাঁদে সাঈদীকে দেখা গেছে এই সংবাদ ইন্টারনেটে ছড়িয়ে লক্ষ লক্ষ লোক রাস্তায় নামিয়েছে এটা খুবই দু:খ জনক।

“দিন বদলের অঙ্গীকার শতভাগ ভর্তির হার” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে প্রধান অততিথির বক্তব্য রাখেন মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের এম.পি ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি এম. ইদ্রিস আলী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্্রনালয়ে সম্পর্কিত স্থায়ী কিমিটর সভাপতির সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি মমতাজ বেগম, জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: কামরুন্নাহারের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রথমিক শিক্ষা অফিসার শামসুন নাহার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কিমানা কিবরিয়ানী।


পরে ২৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১টি আইডিয়াল স্কুলসহ ১০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে শ্রেষ্ঠত্ব ঘোষণা করে পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে। পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ। স্কুলগুলো হলো ফুলদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোসাইরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নতুন চরচাষী রেজি: প্রাথমিক বিদ্যালয়, মিজানুর রহমান চৌধুরী কেজি স্কুল, ভবেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণকান্দি বাউশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২৪নং পুরান বাউশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভবানীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পৈক্ষার পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং গজারিয়া আইডিয়াল স্কুল। শ্রেষ্ঠত্ব যাচাই বাছাই করতে যে বিষয়গুলোর প্রতি দৃষ্টি দেয়া হয়েছে ডিআর ভুক্ত উপস্থিতি, জিপিএ।

উপজেলা চেয়ারম্যান রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন। এখানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা সমানপনী পরীক্ষা ২০১২ এর কৃতি প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে।

ওয়ান নিউজ