প্রবাসীদের বসন্ত উৎসব

basantamoniরাহমান মনি
বারো মাসে তেরো পার্বণ বাঙালি সংস্কৃতির একটি অংশ। বাঙালিরা পৃথিবীর যে প্রান্তেই বসবাস করুক না কেন নিজস্ব সংস্কৃতি বুকে ধারণ করে বেড়ায় সর্বত্র। যতই ব্যস্ত সময় কাটুক বা যতই প্রতিকূল পরিবেশ হোক না কেন নিজস্ব সংস্কৃতি পালন করা চাই-ই-চাই, ধর্মীয় আচার পালন, দিবস পালনের পরই সংস্কৃতি লালন ও পালনের স্থান, ধর্মীয় অনুষ্ঠানে ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস প্রাধান্য পায়, জাতীয় দিবসগুলোতে সরকার পরিবর্তন হলে পালনের ধারণও বদলে যায়, কিন্তু সংস্কৃতি পালনে কোনো পরিবর্তন হয় না। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ থাকে।

ঋতুরাজ বসন্ত। পৃথিবীর সব দেশেই নিজস্ব সংস্কৃতিতে বসন্ত উৎসব পালিত হয়ে থাকে। জাপানেও বসন্তকে বরণ করা হয় জাঁকজমকভাবে। কেলেন্ডারের হিসেবে যদিও ৪ ফেব্রুয়ারি জাপানে আনুষ্ঠানিকভাবে বসন্তকালের আবির্ভাব ঘটে। কিন্তু প্রকৃতির বিধানে জাপানে তখন তাপমাত্রা হিমাংকের নিচে চলে যায়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সব বন্ধ থাকে বসন্তের ছুটি। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের ভাষায় বসন্তে ফুলের সমারোহ দেখার মতো। তখন সত্যি সত্যিই মনে হয় ফুলের দেশ জাপান। চেরি (সাকুরা) ব্লজম ঝরনার অপেক্ষা রাখে না। সবারই তা জানা।


জাপান প্রবাসীরা জাপানিদের সঙ্গে বসন্ত উৎসব পালন করে আসলেও এ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কেউ বসন্ত উৎসব পালন করেনি। এবারই প্রথমবারের মতো জাপান প্রবাসীরা আনুষ্ঠানিকভাবে বসন্ত উৎসব পালন করল। প্রথম বারের মতো বসন্ত উৎসব পালন করতে গিয়ে জাপান প্রবাসীরা প্রথমবারের মতো নতুন একটি সংগঠনের সঙ্গেও পরিচিতি পেল। বাংলাদেশ আর্ট ফোরাম নামের একটি সংগঠন এ বসন্ত উৎসবের আয়োজন করে।

৩ মার্চ ২০১৩ (রোববার) টোকিওর অদূরে সাইতামা কেন এর সোকা শহরের সেজাকি কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত বসন্ত উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন টোকিও বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। উৎসবে উপস্থিত ছিলেন সর্বস্তরের প্রবাসীরা, দূতাবাস কর্মকর্তা এবং জাপানি সুহৃদগণ।

বাংলাদেশ আর্ট ফোরামের সভাপতি শরাফুল ইসলামের শুভেচ্ছা বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। গোলাম মাসুম জিকোর পরিকল্পনায় অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন তানিয়া ইসলাম। সঙ্গীতানুষ্ঠানের পরিবেশনায় ছিল প্রবাসীদের অতি পরিচিত উত্তরণ সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী। এছাড়াও সঙ্গীত পরিবেশন করেন দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) বেবী রানী কর্মকার এবং শাম্মী আকতার।

উৎসবে আর্ট ফোরামের পক্ষ থেকে সকলকে আপ্যায়ন করানো হয় নৈশভোজে। বাংলাদেশ আর্ট ফোরামের পক্ষ থেকে প্রতি বছর জাপানে বসন্ত উৎসব পালনের অঙ্গীকার করা হয়।

rahamanmoni@gmail.com

সাপ্তাহিক