বিএনপির ঢিলেঢালা হরতাল পালিত

মঙ্গলবার বিএনপির ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালে মুন্সীগঞ্জে ঢিলেঢালা পালিত হয়েছে। সকালে হরতালের সমর্থনে বেশ কয়েকবার বিএনপির নেতা-কর্মীরা মিছিল করে। সকালে জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাইয়ের নেতৃত্বে মুক্তারপুর থেকে একটি মিছিল বের হয়। পরে মিছিলটি মুন্সীগঞ্জ জেলা বিএনপির অফিসে আসে। পরে বেলা সাড়ে ১২টায় আবার মিছিল বের হয়। এই সময় উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও মুন্সীগঞ্জ শহর বিএনপির সভাপতি একেএম ইরাদত মানু, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

ছাত্রদল নেতা মাসুদ রানার নেতৃত্বে শহরে হরতালের সমর্থনে পৃথক মিছিল বের হয়। বিএনপির সমর্থক ব্যক্তিদের দোকানপাট বন্ধ রাখতে দেখা যায়। তবে শহরের কাচারী এলাকায় সকল দোকানপাট খোলা ছিল। শহরে রিক্সা ছাড়া কোন ভারী যানবাহন চলাচল করেনি।

মুক্তারপুরের সকল দোকানপাট বন্ধ ছিল। তবে বিএনপি নেতাদের সকল সুতার মিল খোলা ছিল।

মুন্সীগঞ্জ নিউজ

================

হরতালে অচল মুন্সীগঞ্জ

গণহত্যার প্রতিবাদে মুন্সীগঞ্জ শহরের একাংশ, মুক্তারপুর ফেরিঘাট ও সেতু এলাকাসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় শান্তিপূর্ণ হরতাল পালিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে শহরে বিএনপি ও ছাত্রদল হরতালের সমর্থনে খন্ড খন্ড মিছিল বের করে। দুপুর ১২টার দিকে শহরের উপকণ্ঠ মুক্তারপুর এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করেন সাবেক উপমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাই। মিছিলটি পঞ্চসার সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহরের থানারপুল এলাকায় দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।

দুপুর দেড়টার দিকে জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাই ও মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র একে ইরাদত মানুর নেতৃত্বে শহরের থানারপুল এলাকায় আরেকটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি দলীয় কার্যালয় থেকে হাটলক্ষ্মীগঞ্জ গিয়ে শেষ হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে শহরের খালইস্ট এলাকা থেকে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আমিনুল ইসলাম জসিম ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানার নেতৃত্বে একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের থানারপুল এলাকাস্থ দলীয় কার্যালয় প্রদক্ষিণ করে শহরের কৃষিব্যাংক সংলগ্ন পিটিআই এলাকা গিয়ে টায়ারে আগুন ধরিয়ে দেয়।

জাস্ট নিউজ