মুন্সীগঞ্জ জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

bnpmarch21বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা বিএনপি সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই বলেছেন, দেশের মানুষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চায়। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন, তখন দেখা যাবে দেশের মানুষ কাকে ভোট দেয়। দেশের ১৬ কোটি মানুষের পছন্দেই দেশ পরিচালিত হবে।

শনিবার সন্ধ্যায় শহরের থানারপুলস্থ জেলা বিএনপি অফিস প্রাঙ্গনে শহর বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। শহর বিএনপির সভাপতি ও মুন্সীগঞ্জ পৌরসভা মেয়র এ কে এম ইরাদত মানুর সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আজগর মল্লিক রিপন, বিএনপি নেতা আতোয়ার হোসেন বাবুল, শহীদুল ইসলাম, জসিমউদ্দিন, আবদুল আজিম স্বপন, ভিপি শাহীন, মনির হোসেন আলুকদার, মাহবুব-উল আলম স্বপন, যুবদল নেতা তারিক কাশেম খান মুকুল, মুজিবুর রহমান, শামসুল হক সরকার, ছাত্রদল নেতা আমিনুল ইসলাম জসিম, মাসুদ রানা, মহিলা দল নেত্রী পাপিয়া ইসলাম, জাসাস নেতা মঈনউদ্দিন সুমন, জাসাস নেত্রী বিউটি আক্তার তৃষা প্রমুখ।


এদিকে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সিরাজদিখানের কুচিয়ামোড়া এলাকায় জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সম্রাটের নেতৃত্বে একটি মিছিল ও সমাবেশ হয়।
bnpmarch2
জাস্ট নিউজ

==================

শেখ মুজিব ৩৬,৪৭১ জন রাজাকারকে মুক্তি দেয়: মুন্সীগঞ্জে আবদুল হাই

মুন্সীগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই বলেছেন, আমাদের সোজা কথা তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন, তত্বাবধায়কের রাস্তায় আসুন। তখন দেখা যাবে এদেশের মানুষ কাকে ভোট দেয়।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ দেশে রাজাকারের ধুয়া তুলেছে, রাজাকারের কথা বলছে। অথচ শেখ মুজিবুর রহমান ৩৬ হাজার ৪শ’ ৭১জন রাজাকারকে কারাগার থেকে মুক্তি দিয়েছে। এরা কারা। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জামায়াতের কতজন করে আছে তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, দেশের মানুষ রাজাকারের তালিকা জানতে চায়। তিনি বলেন, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু গোলাম আজমের পায়ে হাত দিয়ে সালাম করেছিল। শাহবাগের আন্দোলনের নেতা ডা. ইমরানের বাবা রাজাকার ছিল। ব্লগার রাজিব ঘরে নিজের স্ত্রীকে রেখে বান্ধবীকে নিয়ে রাস্তা দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় তাকে হত্যা করা হয়। টেলিভিশনগুলো টাকা দিয়ে কিনে ফেলা হয়েছে। টকশোতে আজ কারা যায়। যারা সত্য কথা বলে তাদের টকশোতে ডাকা হয় না। খরবগুলোতে কেচি চালানো হচ্ছে। তিনি শনিবার সন্ধ্যায় শহরের থানারপুলস্থ জেলা বিএনপি অফিস প্রাঙ্গনে শহর বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যদানকালে এসব কথা বলেন। শহর বিএনপির সভাপতি ও মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র একে এম ইরাদত মানুর সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আজগর মল্লিক রিপন, বিএনপি নেতা আতোয়ার হোসেন বাবুল, শহীদুল ইসলাম, জসিমউদ্দিন, আবদুল আজিম স্বপন, ভিপি শাহীন, মনির হোসেন আলুকদার, মাহবুব-উল আলম স্বপন, যুবদল নেতা তারিক কাশেম খান মুকুল, মুজিবুর রহমান, শামসুল হক সরকার, ছাত্রদল নেতা আমিনুল ইসলাম জসিম, মাসুদ রানা, মহিলা দল নেত্রী পাপিয়া ইসলাম, জাসাস নেতা মঈনউদ্দিন সুমন, জাসাস নেত্রী বিউটি আক্তার তৃষা প্রমুখ।#

ইউএনএসবিডিডটকম