মেঘনায় লঞ্চ ডুবি,আরো ১ মহিলার লাশ উদ্ধার

মুন্সীগঞ্জের গজারিযায় মেঘনায় লঞ্চ ডুবির ১০ দিনের মাথায় আরো ১ মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে লঞ্চ ডুবিতে প্রানহানির সংখ্যা বেড়ে গিয়ে ১৯-এ দাঁড়িয়েছে। সোমবার বেলা ১০ টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদরের জাজিরা-বকচর গ্রামে মেঘনাবক্ষে ভেসে উঠলে সদর থানা পুলিশ এ মহিলার লাশ উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত নিহত শেফালি বেগম (৪০) নারায়নগঞ্জের রং ব্যবসায়ী আবুল হাশেমের স্ত্রী। তাদের পৈত্রিক বাড়ি চাঁদপুরের মতলব উপজেলার মুক্তিরকান্দি গ্রামে। এ লাশ উদ্ধারের মধ্য দিয়ে আবুল হাশেমসহ তার পরিবারের ৪ জনেরই লাশ পাওয়া গেলো।


এদিকে, দুপুর ২টার দিকে স্বজনদের কাছে নিহত শেফালির লাশ হস্তান্তর করেছে পুলিশ। এর আগে লঞ্চ ডুবির প্রথম দিনে নিহত আবুল হাশেমের ছেলে প্রিন্স (২), দ্বিতীয় দিন মেয়ে হাবিবা আক্তার মনি (১৮) ও ৬ দিনের মাথায় আবুল হাশেমের (৫০) লাশ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া লঞ্চ ডুবিতে উদ্ধার তৎপরতার প্রথম ৩ জন ও দ্বিতীয় দিনে মিলে ১১ লাশ এবং ষষ্ঠতম দিনে ৪ জনের লাশ নিয়ে মোট ১৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। উল্লেখ্য, নারায়নগঞ্জ লঞ্চঘাট থেকে যাত্রীবোঝাই করে গত ৮ই ফেব্র“য়ারি চাঁদপুরের মতলবের যাওয়ার পথে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ইস্মানিরচর গ্রামে বালুবাহী কার্গোর ধাক্কায় মেঘনাবক্ষে এমএল সারস নামীয় লঞ্চটি ডুবে যায়।

জাস্ট নিউজ