শ্রীনগরে স্কুল ছাত্রী লাঞ্ছিত : অপর ছাত্রীর চাচাকে জুতা পেটা

তুচ্ছ ঘটনায় এক স্কুল ছাত্রীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় গতকাল বুধবার সকালে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে অপর এক স্কুল ছাত্রীর চাচাকে সালিশি বৈঠকে জুতা পেটা করা হয়েছে। বেলা ১১ টার দিকে শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল হরেন্দ্র লাল উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। সকাল ১০ টার দিকে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে একই শ্রেণীর অপর ছাত্রীর চাচা বিদ্যালয়ের ভেতর লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনার জের ধরে ছাত্র-ছাত্রীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে স্কুল ছাত্রীর চাচাকে বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে আটকে রাখে।


পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও শিক্ষকদের উপস্থিতিতে সালিশি বৈঠকে প্রকাশ্যে জুতা পেটা করা হয় স্কুল ছাত্রীর চাচাকে। হরেন্দ্র লাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মজিবুর রহমান জানান, বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ২ ছাত্রী জাকিয়া সুলতানা ও রাবিয়া আক্তারের মধ্যে কথা কাটাকাটির জের ধরে ঝগড়া হয়। এ খবর পেয়ে রাবিয়ার চাচা কামরুল ইসলাম বিদ্যালয়ে এসে স্কুল ছাত্রী জাকিয়াকে লাঞ্ছিত করেন। এতে ছাত্র-ছাত্রীরা ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে শ্রেণী কক্ষের ভেতর আটকে রাখে। পরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সালিশি বৈঠক ডাকা হয়।


এতে ভাগ্যকুল ইউনিয়নের নির্বাচিত সদস্য পারভেজ কবির, অপর ইউপি সদস্য হুমায়ুন কবির ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য সুলতান মাহমুদ অপুর উপস্থিতিতে সালিশি বৈঠকে স্কুল ছাত্রীর চাচা কামরুল ইসলামকে জুতা পেটা করার রায় ঘোষণা করা হয়। তাৎক্ষনিক ছাত্র-ছাত্রীদের উপস্থিতিতে ওই জুতা পেটার রায় কার্যকর করা হয়। স্কুল ছাত্রী জাকিয়া সুলতানা শ্রীনগর উপজেলার বালাশুর জামে মসজিদের ঈমাম মাওলানা মনিরুজ্জামানের মেয়ে ও অপর স্কুল ছাত্রী রাবিয়া আক্তার উত্তর কামারগাঁও গ্রামের বাবুল শেখের মেয়ে।

জাস্ট নিউজ