পদ্মা সেতুর কাজ দুই মাসের মধ্যে: মুহিত

বিশ্ব ব্যাংককে ছাড়া বর্তমান সরকারের মেয়াদে পদ্মা সেতুর কাজ শুরু করা সম্ভব হবে না বলে এতদিন মনে করলেও ঋণদাতা সংস্থাটির সঙ্গে এই প্রকল্পে সম্পর্কোচ্ছেদের পর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত দুই মাসের মধ্যে কাজ শুরুর আশা প্রকাশ করেছেন।

তিনি শনিবার চট্টগ্রামে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এই আশার কথা জানান। মুহিত বলেন, আশা করছি, “আগামী মাসে টেন্ডার আহ্বান করতে পারব। এর পর ৪৫ দিন সময় লাগবে।” সব মিলিয়ে দুই মাসের মধ্যে সেতুর কাজ করতে পারা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

২৯১ কোটি ডলারের পদ্মা প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংকের ১২০ কোটি ডলার দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু দুর্নীতির অভিযোগ তুলে অর্থায়ন আটকে দেয়ার পর জটিলতার মুখে গত বৃহস্পতিবার সরকার সংস্থাটিকে জানিয়ে দেয়, তাদের অর্থ নেয়া হবে না।

অর্থমন্ত্রী তার একদিন আগেই সাংবাদিকদের বলেছিলেন, বিশ্ব ব্যাংককে এই প্রকল্পে রাখতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

গত বুধবার তিনি বলেছিলেন, “সবচেয়ে ভালো হয়, বিশ্ব ব্যাংককে নিয়ে পদ্মা সেতুর কাজ শুরু করা। আমি চেষ্টা করছি এই প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংককে রাখতে।”

“সত্যি কথা বলতে কি, বর্তমানে প্রকল্পটি যে অবস্থায় আছে, বিকল্প কোনো ব্যবস্থায় এই সেতুর কাজ আমাদের সরকারের মেয়াদে শুরু করা সম্ভব হবে না,” এক প্রশ্নের উত্তরে বলেছিলেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী শনিবার চট্টগ্রাম কাস্টমস অ্যান্ড ভ্যাট আন্তঃক্লাব ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন। ওই অনুষ্ঠানে পদ্মা সেতু নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি।


বিশ্ব ব্যাংককে ‘না’ জানিয়ে দেয়ার বিষয়ে মুহিত বলেন, “অভ্যন্তরীণ সম্পর্ক বিভাগে থেকে এনিয়ে সরকারের বক্তব্য দেয়া হয়েছে।

“আমরা বলেছি, তোমাদের যে সমযসূচি তা আমাদের সঙ্গে মিলছে না। এটা আমাদের নির্বাচনী অঙ্গীকার। এখন দেখছি, তাদের সঙ্গে কাজ করা যায় না।”

বিশ্ব ব্যাংককে বাদ দিয়ে কীভাবে সেতুর অর্থায়ন হবে- জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, “বাস্তবায়ন যেভাবেই হোক করব। নিজের টাকায়ই করব, তা না পারলে কারো কাছ থেকে এনে করব।”

বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গে জটিলতার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত সপ্তাহে বলেছেন, নিজস্ব উদ্যোগে সেতু নির্মাণের প্রস্তুতিও সরকারের রয়েছে। অর্থের বিকল্প উৎস হিসেবে মালয়শিয়া, চীন ও ভারতের কথাও বলেন তিনি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর