মুন্সীগঞ্জে ৩ হত্যায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে ৩ মামলা

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান ও শ্রীনগরে গুলি করে ৩ যুবককে হত্যার ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় আসামি অজ্ঞাত রেখে ৩টি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিরাজদিখান থানায় ২টি ও শ্রীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। একটি মামলার বাদী হয়েছেন নিহত ইব্রাহিমের পিতা খোরশেদ আলম ও অপর ২টি মামলায় পুলিশের এসআই আব্দুস সালাম ও আবু হানিফ বাদী হয়েছেন।

তবে মামলা দায়ের হওয়ার পর থেকে পুলিশ এ হত্যার কারণ উদঘাটনে জোর তদন্ত শুরু করলেও শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত কোনো ক্লু উদ্ধার করতে পারেনি।

অন্যদিকে গুলিবিদ্ধ ৩ যুবকের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল প্রেরণ করা হলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইব্রাহিম ও কুদ্দুসের লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।


মাসুদের লাশ শুক্রবার ময়না তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. এহসানুল করিম।

এদিকে নিহত ইব্রাহিম, কুদ্দুস ও মাসুদের পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তাদের বাড়িতে চলছে কান্নার রোল।

নিহত ইব্রাহিমের মামা বাবুল বাংলানিউজকে জানান, এ হত্যার ঘটনায় পুলিশ রহস্যজনক ভূমিকা পালন করছে। আপনারা (মিডিয়ার কর্মীরা) সহযোগিতা করলে এ হত্যার বিচার পাওয়া যাবে। তাই তিনি বারবার মিডিয়ার সহযোগিতা কামনা করেছেন।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুর রহমান জানান, সিরাজদিখানের রশুনিয়া থেকে গুলিবিদ্ধ ইব্রাহিম (২৫) ও কুদ্দুসের (৪০) লাশ উদ্ধার করে ২টি হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে। দুইটি মামলায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করা হয়েছে।


তিনি জানান, একটি মামলায় বাদী হয়েছেন ইব্রাহিমের পিতা খোরশেদ আলম এবং অপরটির বাদী হয়েছেন সিরাজদিখান থানার এসআই আব্দুস সালাম।

তিনি আরও জানান, মামলা রুজু হওয়ার পর থেকে জোর তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত এ হত্যার সঙ্গে কারা জড়িত বা কি কারণে তাদের হত্যা করা হয়েছে এ বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান জানান, শ্রীনগরের বাড়ৈইখালি-শ্রীধরপুর এলাকা থেকে নিহত মাসুদের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় শ্রীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে।

এসআই আবু হানিফ বাদি হয়ে এ মামলা রুজু করেছেন। এ মামলায়ও অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করা হয়েছে বলেও জানান ওসি মিজানুর রহমান।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৮টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের রশুনিয়া এলাকা থেকে ইব্রাহিম ও কুদ্দুস মিয়া ও শ্রীনগরের বাড়ৈইখালি-শ্রীধরপুর সড়কের পাশ থেকে মাসুদের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়।

একই কায়দায় নতুন গামছা দিয়ে বেধেঁ ৩ জনকে গুলি করে হত্যা করে ঘাতকরা। বুধবার দিবাগত রাতে তাদের গুলি করে হত্যার পর মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান ও শ্রীনগরে ফেলে রেখে যায় বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম