মুন্সীগঞ্জ জেনারলে হাসপাতালের ওপর টিআইবি’র রিপোর্ট কার্ড প্রকাশ

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টি.আই.বি) মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবার ওপর রিপোর্ট কার্ড মঙ্গলবার বিকেলে এক মতবিনিময় সভায় পেশ করেছে। এ রিপোর্ট কার্ডটি লিখিত উপস্থাপন করেন টিআইবির গবেষক ও প্রতিবেদন রচনাকারী মোহাম্মদ হোসেন। রিপোর্টে জেনারেল হাসপাতালের বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা ও বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ সমূহ তুলে ধরা হয়।

এগুলো হচ্ছে- ১. হাসপাতালটি ১০০ শয্যার হলেও এটি ৫০ বেডের অর্গানোগ্রামে পরিচালিত হচ্ছে। কিন্তু বর্তমানে ৫০ বেডের জনবলও নেই। ২. প্রয়োজনীয় চিকিৎসা চিকিৎসা উপকরনের অভাব। আবার বিদ্যমান অনেক যন্ত্রপাতি নষ্ট। ৩. স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট কিনিকের কর্মী ও দালাল এই হাসপাতালে আগত রোগীদেরকে ভাল চিকিৎসার প্রলোভন দেখিয়ে কিনিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা। ৪.জনবল সংকটের কারণে হাসপাতালে রোগীর উপস্থিতি ও দালাল নিয়ন্ত্রণ করতে না পারা। স্থানীয় কিনিক-ডায়াগনোস্টিকের মালিকপক্ষ স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তা রোধ করতে না পারা। ৫. হাসপাতালটিতে কোন তথ্য ও অনুসন্ধান কেন্দ্র নেই।


এ সময় সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) মুন্সীগঞ্জের সভাপতি খালেদা খানমের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. বনদ্বীপ লাল দাস, মুন্সীগঞ্জ প্রেসকাবের সভাপতি শহীদ-ই-হাসান তুহিন, সাধারণ সম্পাদক কাজী সাব্বির আহমেদ দীপু, মুন্সীগঞ্জ প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি আরিফ-উল-ইসলাম, টিআইবর প্রোগাম অফিসার করুনা কিশোর চক্রবর্তী, জেলা বিএমএ এর সভাপতি ডা. আখতার হোসেন বাপ্পি, আরএমও ডা. এহসানুল করিম প্রমুখ।

টাইমস্ আই বেঙ্গলী