মুন্সীগঞ্জে পৃথক ঘটনায় ‍গৃহবধূ ও যুবকের আত্মহত্যা

মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মুন্সীগঞ্জে দুইটি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। বাবার সঙ্গে অভিমান করে বৃহস্পতিবার ভোরে সিরাজদিখান উপজেলায় আল আমিন (২৫) নামে দুই সন্তানের জনক এবং পারিবারিক কলহের কারণে সকালে টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় শিরিন আক্তার (২০) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করে।

পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাংলানিউজকে জানান, আল আমিন শিয়ালদি গ্রামের মোকলেছ চৌকিদারের ছেলে। তার দুই সন্তান রয়েছে।

বাবার সঙ্গে অভিমান করে ভোরে নিজের মাফলার গলায় পেঁচিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


পরে নিজ বাড়ির লিচু গাছ থেকে সকাল ১১টার দিকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

এ ব্যাপারে সিরাজদিখান থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

অপরদিকে, পারিবারিক কলহের জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে গৃহবধূ শিরিন আক্তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

সে টঙ্গিবাড়ী উপজেলার দিঘিরপাড় ইউনিয়নের সরিষাবন গ্রামের মৃত ফজল মিয়ার ছেলে নুর আলমের স্ত্রী।

এতে স্বামী নুর আলম ও প্রতিবেশীরা তাকে মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ সময় লাশ ফেলে রেখে স্বামী নুর আলম পালিয়ে যায়।

শেষ খবর যাওয়া পর্যন্ত দুপুর ৩টা পর্যন্ত গৃহবধূর লাশ হাসপাতালেই রয়েছে বলে জানা গেছে।

তবে স্বপন মিয়াসহ কয়েকজন প্রতিবেশী হাসপাতালে অবস্থান করছেন।

এ প্রসঙ্গে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল বাসার জানান, হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার বিষয়টি জানালে সেখানে পুলিশের টিম পাঠানো হয়েছে।

তবে এই ঘটনায় থানায় এখনো কোনো মামলা হওয়ায় খবর যাওয়া যায়নি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম