টঙ্গীবাড়ীতে পাগলের কান্ড!

ব.ম শামীম: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেতকা গ্রামের মো. শাহজাহান খানঁ এর ছেলে সবুজ (২২) শুক্রবার বেতকা বাজার কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের প্রায় ২০০ ফিট উচুঁ মসজিদের মিনারে উঠে বসে ছিলো। খবর পেয়ে মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস কর্মিরা প্রায় ৩ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে রাত ৯.৩০ মিনিটে তাকে মসজিদের মিনার হতে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। পাগলের এ দৃশ্য দেখার জন্য বেতকা বাজারে সন্ধার পর হাজার হাজার লোকের ভিড় জমে যায়।


স্থাণীয় সূত্রে জানাযায়, সবুজ দির্ঘদিন যাবৎ বেতকা বাজারে মুদি দোকান ব্যাবসা করে আসছিলো। সম্প্রতি সে মাদকের নেশায় জড়িয়ে পরে। পরিবার সূত্রে জানাযায় ৫-৬ দিন যাবৎ সবুজ হঠাৎ করে পাগলের ন্যায় আচরন করতে শুরু করেছে। শুক্রবার তাকে পরিবারের লোকজন খুজেঁ না পেয়ে আশে-পাশের এলাকায় খুজঁতে গিয়ে দেখে সে বেতকা বাজার মসজিদের মিনারের উপরের মাইকের বক্রের উপর বসে আছে।

এ ঘটনায় প্রথমে টঙ্গীবাড়ী থানা পুলিশ পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন খবর দেওয়া হয়। টঙ্গীবাড়ী থানা এস আই আরব আলি জানান, পাগল মসজিদের মিনার প্রায় ২০০ ফিট উচুঁতে উঠে বসে ছিলো। এ ঘটনায় আশেপাশের লোকজন তাকে দেখার জন্য ভিড় জমায়। নাম প্রকাশে অনইচ্ছুক এলাকার কতিপয় ব্যাক্তি জানান, স্থাণীয় বেতকা ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তার খানঁ এর ভাতিজা মাদকের নেশাগ্রস্থ সবুজ সম্প্রতি মাদকের টাকা জোগাতে বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে হয়তো মসজিদের মিনারের মাইক চুরী করার জন্য সে এতো উচুঁতে উঠে থাকতে পারে।

====================

মুন্সিগঞ্জে মসজিদের মিনারের ৩০ ফুট উচ্চ চূড়া থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহুতি দেওয়ার হুমকি- ৬ঘন্টা পর অখ্যত উদ্ধার !

হাতে ধারালো এক ছোরা। বসে আছে মসজিদের সু-উচ্চ মিনারের চূড়ায়। আর চিৎকার করে বলছে লাফিয়ে নীচে পড়বো। কেউ এগিয়ে আসবে না। উপর থেকে লাফিয়ে জীবন দিতে প্রস্তুত আমি। আর এ দৃশ্য দেখার জন্য মসজিদের মিনারের চারপাশ জুড়ে জড়ো হয়েছে হাজারো নারী-পুরুষ, আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা। সবাই তাকিয়ে ছিল মিনারের চূড়ায়। অপলক দৃষ্টি তাদের চূড়ায় থাকায় যুবকের দিকে। বুক ধড়ফড় করছে সবারই। শত শত মানুষের হই-হুল্লোর আর চেঁচামেচি চলতে থাকে চারপাশে- এমন রুদ্ধশ্বাস পরিবেশের মধ্য দিয়ে প্রকাশ্যে আত্মহুতি দেওয়ার হুমকি দিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে দীর্ঘ ৬ ঘন্টা ধরে মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার বেতকা জামে মসজিদের ৩০ ফুট উপড়ের মিনারের চূড়ায় বসে আছে উম্মাদ এক যুবক।

উম্মাদ এ যুবকের নাম সবুজ খান (২৫)। সে বেতকা গ্রামের শাহজাহান খানের ছেলে। বেতকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত আলী খান মোক্তারের ভাতিজা। যুবকের পরিবারের সূত্র মতে জানা গেছে, যুবক সবুজ বেতকা বাজারের একজন কসমেটিকস ব্যবসায়ী। ব্যবসায় তার লোকসানের কারণে আসল পুজি হারিয়ে ফেলে। আস্তে আস্তে সে মানসিক ভারসাম্য হারাতে থাকে। ফলে কয়েক দিন ধরে তার মধ্যে মানসিক ভারসাম্যহীনতা দেখা যাচ্ছিল বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে। সবুজ খান প্রায় পাগলের মতো আচরন করে চলেছে ঘরে-ঘরের বাইরে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫ টার দিকে মসজিদের মিনারের চূড়ায় উঠে বসে ওই যুবক। তাৎনিক খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান টঙ্গিবাড়ী থানা পুলিশের টিম ও মুন্সিগঞ্জ সদরের ফায়ার সার্ভিসের দমকল কর্মীরা। মিনারের চূড়া থেকে যুবককে নামিয়ে আনতে সন্ধ্যা ৬ টায় শুরু করেন রুদ্ধশ্বাস উদ্ধার অভিযান। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় পুলিশ ও দমকল কর্মীরা উম্মাদ যুবককে অখ্যত উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। শহরের উপকন্ঠ নয়াগাঁও এলাকাস্থ ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন মাষ্টার নুরুল আলম দুলাল জানান, যুবকের কাছাকাছি যাওয়া যাচ্ছে না। তার হাতে ধারালো ছোরা রয়েছে। কাছে গেলেই ছোরা দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা চালাচ্ছে সে। তাছাড়া মিনারের চূড়ায় বসে থাকা যুবকের কাছাকাছি গিয়ে নামিয়ে আনা দুস্কর বটে।

তবে- উম্মাদ যুবককে মিনারের চূড়া থেকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করার প্রচেষ্টা চালিয়ে অবশেষে রাত সাড়ে ১০টায় ইলেক্ট্রিসিটি বন্ধ করে ফায়ার সার্ভিসের চোঙ্গ দিয়ে তার কোমড়ের বেল্ট ধরে ধীরে হাতে থাকা ছুরি কেড়ে নিয়ে তাকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে তার বাবা মার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। স্থানীয় সকলের একটাই কথা ব্যবসায়ীক লোকসানের কারণে এভাবে প্রকাশ্যে আত্মাহুতি দেওয়ার হুমকি দেয়নি অন্য কোন কারণ আছে। সকল জল্পনা কল্পনার অবসায় ঘটিয়ে ছেলেটিকে জীবিত অখ্যত অবস্থায় উদ্ধার করতে পেরেছে এটাই শান্তনা সুবজের পরিবারের কাছে।

ইউপিবি নিউজ ২৪