ডাকাত ঠেকাতে মুন্সীগঞ্জের ৬ গ্রামে রাত জেগে পাহারা

ডাকাত প্রতিরোধে মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছেন ৬ গ্রামের দু’সহস্রাধিক বাসিন্দা। একাধিক গ্রুপে বিভক্ত হয়ে তারা রাতভর পালাক্রমে নিজ নিজ গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পাহারা দিয়ে যাচ্ছেন গত কয়েক দিন ধরে। এ সময় পাহারাদারদের হাতে থাকে লাঠিসোঁটাসহ দেশীয় ধারালো অস্ত্র। অনুসন্ধানে জানা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে জেলার টঙ্গীবাড়ি উপজেলার ধামারন, বাংলিয়া, মান্দ্রা, আলদী, ধীপুর ও কামারাখাড়া গ্রামে ডাকাতির ঘটনা আশংকাজনক হারে বেড়ে গেছে।

বুরুলিয়া ও ধামারন গ্রাম ঘুরে জানা গেছে, গেলো ১৫ দিনের ব্যবধানে এই দু’টি গ্রামে ৭-৮টি ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া এক সপ্তাহের ব্যবধানে কামারখাড়া, শিমুলিয়া, মান্দ্রা গ্রামে আরো ৬টি ডাকাতির ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন বাসিন্দারা।

ধামারন গ্রামের বাসিন্দা আকরাম হোসেন জানান, গ্রামবাসীর এ উদ্যোগে টঙ্গীবাড়ি থানা পুলিশ সহযোগিতা করছে। গ্রামবাসীর পাশাপাশি পুলিশের টহল দল ওই গ্রামগুলোতে রাতে কয়েক দফায় টহল দিয়ে থাকে।

এলাকাবাসী জানান, ডাকাত দলের ভয়ে রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে এলাকাবাসীর। এ অবস্থায় থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সহযোগিতায় পাহারার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানায়, এ ব্যবস্থা বেশ কাজে দিয়েছে।

টঙ্গীবাড়ি থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ জানান, ডাকাত প্রতিরোধে গ্রামবাসী স্বেচ্ছায় পাহারা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। তারা কয়েকটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে রাত জেগে লাঠি ও ধারালো অস্ত্র হাতে পাহারা দেয়। তাদের সহযোগিতায় পুলিশের টহল টিমও রাতভর গ্রাম থেকে গ্রাম ঘুরে বেড়ায়।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

[ad#bottom]