পদ্মা সেতুতে জাপানের অর্থায়ন নিশ্চিত: মন্ত্রী

জাপানের ভূমিকম্প ও সুনামির পরও পদ্মা সেতু নির্মাণের দেশটির অর্থায়নে কোনো জটিলতা নেই বলে জানিয়েছেন যোগাযোগন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন। তিনি সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, “সা¤প্রতিক সুনামির পরও পদ্মা সেতু নির্মাণে জাপানি অর্থায়নের পূর্ণ নিশ্চয়তা রয়েছে এবং এ ব্যাপারে বিভ্রান্তির কোনো সুযোগ নেই।” কিছুদিন আগেই ৮ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্প এবং এর ফলে সৃষ্ট সুনামিতে লণ্ডভণ্ড হয়ে পড়ে জাপানের উপকূল অঞ্চল। ভূমিকম্পের কারণে একটি পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে তেজস্ক্রিয়াও ছড়িয়ে পড়ে, যা সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে দেশটিকে।

ভূমিকম্পের কারণে পদ্মা সেতুতে জাপানি অর্থায়ন যথাসময়ে আসবে না বলে অনেকে ধারণা করছে। ২২০ কোটি ডলার ব্যয়ে নির্মিতব্য পদ্মা সেতুর জন্য ৩০ কোটি ডলার দিচ্ছে জাপান।

সোনারগাঁও হোটেলে সড়ক নিরাপত্তা নিয়ে এক কর্মশালা উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নে পদ্মা সেতু নিয়ে কথা বলেন যোগাযোগমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশে গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কগুলো চার লেনে উন্নীত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, চট্টগ্রাম-হাটহাজারী, রংপুর মহাসড়কে এ কাজ চলছে। জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ সড়কে কাজ শিগগিরই শুরু হতে যাচ্ছে।

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে জয়দেবপুর-চন্দ্রা-টাঙ্গাইল, ফরিদপুর-বরিশাল এবং ঢাকা-মাওয়া-ভাংগা সড়কগুলো চার লেনে উন্নীত করার লক্ষ্যে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে বলে জানান যোগাযোগমন্ত্রী।

সড়কে গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষ এড়াতে রোড ডিভাইডার দেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

কর্মশালার উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন সড়ক ও রেলপথ বিভাগের সচিব মো. মোজাম্মেল হক খান, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. শাহাবউদ্দিনসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

[ad#bottom]