বৈশাখের সবচেয়ে তারকাবহুল অ্যালবাম আলাউদ্দিন আলীর ‘হৃদয়ের গান’

আমাদের দেশীয় বাংলা চলচ্চিত্রের অসংখ্য জনপ্রিয় গানের সুরকার-সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী। চলচ্চিত্রের গানের ক্ষেত্রে যাকে একনিষ্ঠ যোদ্ধাও বলা চলে। নব্বই দশকের দিকে চলচ্চিত্রের বাইরে বেশ ক’জন স্বনামধন্য কণ্ঠ শিল্পীর অডিও অ্যালবামের কাজও করেছেন তিনি। আলাউদ্দিন আলীর সুর-সংগীতে সেই গানগুলোও তখন বেশ শ্রোতাপ্রিয়তা লাভ করেছিল। তিন বছর আগে মনির খানের অ্যালবামের জন্য সর্বশেষ গান করেছিলেন তিনি। এরপর চলচ্চিত্রের গানের ব্যস্ততা, অডিও মন্দাসহ বিভিন্ন কারণে অডিও অ্যালবামে কাজ করা তেমন একটা হয়ে উঠেনি। তবে এবার তারকাবহুল চমকপূর্ণ একটি মিশ্র অ্যালবাম নিয়ে শ্রোতাদের সামনে হাজির হচ্ছেন আলাউদ্দিন আলী। অ্যালবামের নাম রেখেছেন ‘হৃদয়ের গান’। অ্যালবামটি বাজারে আসবে পহেলা বৈশাখে। এটি হবে পহেলা বৈশাখের সবচেয়ে তারকাসমৃদ্ধ অ্যালবাম।

ডেসটিনি গ্রুপ আ্যালবামটি বাজারে ছাড়ার ব্যবস্থা করছে। মূলত আলাউদ্দিন আলীর সুর-সংগীতায়োজনে ‘হৃদয়ের গান’ হবে একটি ডাবল সিডি অ্যালবাম। একটি মোড়কে ‘হৃদয়ের গান-১’ এবং ‘হৃদয়ের গান-২’ নাামের দুটি সিডির মধ্যে থাকবে গানগুলো। ‘হৃদয়ের গান-১’ অ্যালবামটি সাজানো থাকবে সম্পূর্ণ আধুনিক গান নিয়ে। এখানে গান থাকবে ১০টি। ৭ জন পুরুষ কণ্ঠশিল্পীর গান স্থান পাবে এই অ্যালবামে। এই অ্যালবামের শিল্পীরা হলেন-এন্ড্রু কিশোর, সুবীর নন্দী, রফিকুল আলম, মনির খান, শুভ্রদেব, এসআই টুটুল এবং বিপ্লব। আর ‘হৃদয়ের গান-২’ হবে সম্পূর্ণ দেশাত্মবোধক গান নিয়ে। ৪ জন নারী কণ্ঠশিল্পীর কণ্ঠে ৬টি গান থাকবে এখানে। হৃদয়ের গান-২ এর শিল্পীরা হলেন সাবিনা ইয়াসমীন, রুমানা ইসলাম, ফারজানা আলী এবং বিউটি। ডাবল সিডি এই অ্যালবামের ১৬টি গান লিখেছেন জিয়া আহমেদ শেলী।

অনেক আগে তিনি কিছু গান লিখলেও এবারই প্রথমবারের মতো পুরো একটি অ্যালবামের সবক’টি গান লিখলেন। অ্যালবামের প্রতিটি গানের সুর-সংগীতায়োজন করছেন আলাউদ্দিন আলী। অ্যালবামটি পহেলা বৈশাখে বাজারে আসলেও বৈশাখের তৃতীয় দিন সন্ধ্যায় অ্যালবামটি প্রকাশ হওয়া উপলক্ষে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন আলাউদ্দিন আলী। ইতিমধ্যে শ্রুতি স্টুডিওতে অ্যালবামের বেশির ভাগ গানের রেকর্ডিং সম্পন্ন হয়েছে। শেষের দিকের কাজ শেষ করে পহেলা বৈশাখেই বাজারে আসছে বিগ বাজেটের এই অ্যালবাম। তিন বছর পর এত বড় একটি অ্যালবাম করা প্রসঙ্গে আলাউদ্দিন আলী বলেন, আসলে চলচ্চিত্রের ব্যস্ততা সহ বিভিন্ন কারণেই অডিও অ্যালবামের কাজ দীর্ঘদিন করা হয়নি। সত্যি বলতে বর্তমানে অডিও মন্দা থাকা সত্ত্ব্বেও আমি অ্যালবামটি নিয়ে বেশ আশাবাদি। কারণ এখন তো গানের বাজারে অবক্ষয় যাচ্ছে। একই ধরনের গান শোনা যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। আসলে লুপ নির্ভর গানের কারণে রাগ নির্ভর গান এখন হারিয়ে যেতে বসেছে। এসব অতি প্রযুক্তি নির্ভর গান বেশিদিন স্থায়ী হতে পারে না, পারবে না। আর এখন তো ভাল বাণীর গানেরও বেশ অভাব। সেদিক থেকে পরিপূর্ণ বাংলা গান যাকে বলে সে রকম কিছু করার চেষ্টা করেছি। কথা-সুর-সংগীতে বাঙালি ভাব বজায় থাকবে। আর আমি অ্যাকুস্টিক ব্যবহার করেছি সবক’টি গানে। অ্যালবামটি পহেলা বৈশাখে আসবে বাজারে। আশা করছি ভাল বাংলা গানের শ্রোতাদের গানগুলো ভাল লাগবে।

[ad#bottom]