লৌহজংয়ে বাধার মুখে পদ্মা সেতুর মাটি ভরাটের কাজ বন্ধ

জমি অধিগ্রহণের টাকা না পাওয়ায় বিক্ষুব্ধ লোকজন গত বৃহস্পতিবার পদ্মা সেতুর মাটি ভরাটের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। সেখানকার অনন্তসার ও উয়ারী মৌজায় পদ্মা সেতুর মালামাল রাখা ও নদীর পাড় বাঁধাইয়ের জন্য প্রায় ৬০ একর জমিতে মাটি ভরাটের কাজ চলছিল।

স্থানীয় লোকজন জমির টাকা না পাওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের অবহেলাকে দায়ী করেছে। এ বিষয়ে আলোচনার জন্য গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় জমির মালিকদের সঙ্গে আলোচনায় বসে সেতু কর্তৃপক্ষ। তবে রাত সাড়ে ৮টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত দুই পক্ষের কোনো সমঝোতা হয়নি।

এলাকার লোকজন জানায়, জমির টাকা না পাওয়ায় এর আগেও একবার মাটি ভরাটের কাজে বাধা দেওয়া হয়েছিল। পরে স্থানীয় এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি ভূমি মালিকদের জমির যথাযথ মূল্য পরিশোধের আশ্বাস দেওয়ার পর আবার কাজ শুরু হয়। কিন্তু জেলা প্রশাসন জমির ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কোনো উদ্যোগ নেয়নি।

ওই এলাকার হাশেম হাওলাদার, জমির মোড়ল, খবির হাওলাদারের নেতৃত্বে বিক্ষুব্ধ জমির মালিকরা বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমারভোগ ইউনিয়নের দুটি মৌজায় মাটি ভরাটের কাজ বন্ধ করে দেন। এলাকাবাসীর অভিযোগ, কর্তৃপক্ষ শতাধিক মালিকের জমি অধিগ্রহণ করলেও এ পর্যন্ত মাত্র ১০ শতাংশ লোকের জমির দাম পরিশোধ করেছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো বারবার জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন জানালেও কোনো ফল হয়নি।

এ ব্যাপারে গতকাল মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসকের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কেউ ফোন ধরেনি। অন্যদিকে লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. গোলাম মোস্তফার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি জানেন না বলে দাবি করেন।

[ad#bottom]