পদ্মা সেতুর তহবিল সংস্থানে সমস্যা হবে না : বিশ্বব্যাংক

পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রধান অর্থ জোগানদাতা প্রতিষ্ঠান বিশ্বব্যাংক বলেছে, জাপান সংকট ও গ্রামীণ ব্যাংক ইস্যুর কারণে এ প্রকল্পের তহবিল সংস্থানে কোনো সমস্যা হবে না। জাপানের তহবিল সরবরাহ মুলতবি এবং গ্রামীণ ব্যাংক ইস্যুতে বিশ্বব্যাংকের ঠিকাদার মনোনয়নে বিলম্বের গুজব সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে বিশ্বব্যাংকের আবাসিক পরিচালক এলেন গোল্ডস্টেইন গতকাল বলেন, বাংলাদেশে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় পরিচালিত প্রকল্পসমূহের বাস্তবায়ন স্বাভাবিকভাবেই অগ্রসর হচ্ছে। খবর বাসস।

তিনি মুলতবি বা বিলম্বের সাম্প্রতিক গুজব ভিত্তিহীন উল্লেখ করে বলেন, চলতি অর্থবছরে সম্ভাব্য তহবিল ছাড়ের পরিমাণ হলো ৪০ কোটি মার্কিন ডলার, যা গত অর্থবছরের অর্থ ছাড়ের পরিমাণের প্রায় সমপরিমাণ। গোল্ডস্টেইন বলেন, চলতি অর্থবছর বিশ্বব্যাংক রেকর্ড সংখ্যক নতুন প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বিশ্বব্যাংক আশা করছে আগামীতে বার্ষিক আর্থিক সহায়তার পরিমাণ উল্লেখযোগ্যহারে বাড়বে। তিনি বলেন, জাতীয় সমস্যা সত্ত্বেও জাপান পদ্মা সেতুতে আর্থিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি পুনঃনিশ্চিত করেছে। তারা বলেছেন, মূল সেতু নির্মাণের জন্য সময় মতো তাদের চুক্তি স্বাক্ষর হবে। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংক কর্তৃক বিলম্বের রিপোর্ট সঠিক নয়। গোল্ডস্টেইন বলেন, এপ্রিলের মধ্যেই মূল সেতুর প্রাক-যোগ্যতা ও বিডিং ডকুমেন্ট, নদীশাসনের প্রাক-যোগ্যতা এবং নির্মাণ পর্যবেক্ষক কনসালটেন্ট নিয়োগ সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংক ছাড়াও পদ্মা সেতু নির্মাণে এডিবি, আইডিবি ও জাইকা অর্থ সহায়তা দেবে।

বাংলাদেশ প্রতিদিন

[ad#bottom]