পদ্মা সেতু প্রকল্পের ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ কাজ মুখ থুবড়ে পড়েছে

পদ্মা সেতু নির্মান প্রকেল্পর অধীনে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে ঠিকাদার ও নির্মান শ্রমিকদের নিরাপত্তার অভাবে ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ কাজ মুখ থুবড়ে পড়েছে। জেলার লৌহজং উপজেলার মাওয়া চৌরাস্তা সংলগ্ন কুমারভোগ এলাকায় ওই ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ কাজ চলছে।

স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্রের হুমকি-ধামকির মুখে দু’শতাধিক শ্রমিক অবকাঠামো নির্মাণের কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। ওই শ্রমিকরা গত শুক্রবার থেকে কাজ গুটিয়ে রেখেছেন বলে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা গেছে।

অন্যদিকে, অবকাঠামো নির্মাণ কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স নূর মোহাম্মদ খান অ্যান্ড সন্সের পক্ষে লৌহজং থানায় ঠিকাদার ও শ্রমিকদের নিরাপত্তা চেয়ে গত শনিবার জিডি দায়ের করা হয়েছে।

এছাড়া ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় প্রভাবশালীদের ভয়-ভীতি প্রদর্শনের কথা লিখিতভাবে মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসককেও জানিয়েছে বলে লৌহজং থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হেলাল উদ্দিন রোববার বিকেলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

তবে তিনি জানান, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ ইউনিয়নের মাওয়া চৌরাস্তা এলাকায় ভৌত অবকাঠামো নির্মাণের স্থানে বালু ভরাটের কাজ করছে।

এদিকে স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, নদী থেকে বাড়িঘর ও বসতভিটার ওপর দিয়ে পাইপ টানা হয়েছে। কিন্তু ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কেউ এসব ব্যাপারে কোনও কিছুই জানায়নি স্থানীয়দের। এতে তারা ক্ষুব্ধ হয়ে শ্রমিকদের ভয়-ভীতি দেখিয়েছে।

অপরদিকে, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের অভিযোগ, প্রভাবশালী মহল কাজের সাব-কন্ট্রাক্ট চেয়েছিল। তাতে রাজি না হওয়ায় মহলটি চাঁদা দাবি করেছে। এ কারনেই শুক্রবার থেকে ভৌত অবকাঠামোর কাজ বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় মহলের মোটা অংকের চাঁদা দাবির প্রেক্ষিতে সেখানকার দু’শতাধিক নির্মাণ শ্রমিক নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে শ্রমিকরা জানান।

শ্রমিকরা জানান, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা এ অবস্থায তাদের কাজে যেতে বারন করেছেন।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক আজিজুল আলমের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

[ad#bottom]