আড়িয়াল বিল রক্ষা কমিটির সমর্থকদের সাথে সরকার সমর্থকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় শ্রীনগর থানায় পৃথক দুটি মামলা

গত বুধবার দুপুর একটার দিকে ঢাকা মাওয়া মহাসড়কে আড়িয়াল বিল রক্ষা কমিটির সমর্থকদের সাথে বঙ্গবন্ধু বিমান বন্দর নির্মাণ সরকার সমর্থকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় পুলিশ ও আনন্দ পরিবহনের হেল্পপারসহ ২০২৬ জনকে আসামী করে গতকাল বৃহস্পতিবার শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করেছে। শ্রীনগর থানার এস আই খালিদ ৫টি গ্রামের অজ্ঞাতনামা ২০০০ জনকে আসামী করে এই মামলা করেন। গ্রাম গুলো হচ্ছে – সমসাবাদ, মুন্সিরহাটী, আরধিপাড়া, ষোলঘর ও ভূইচিত্র। সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর হামলা, দাঙ্গা সৃষ্টির চেষ্টায় এ মামলা দায়ের করা হয়। এই মামলা দায়ের খবর পেয়ে ৫টি গ্রাম থেকে পুলিশের আক্রমণের ভয়ে পুরুষ লোকজন গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এদিকে আনন্দ পরিবহনের হেল্পপার মাসুক নিজে বাদী হয়ে এ থানায় মামলা দায়ের করেন। তিনি শ্রীনগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কাজী শামিম ইমাম সাচ্চু, মোকশেদ মাস্টার, আবদুল বাতেন মাস্টার, নাজির তালুকদার, নন্দলালসহ ২৬ জনকে আসামী করে এ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় শ্রীনগরে ভীতিকর অবস্থা বিরাজ করছে। উল্লেখ, সাড়ে তিন ঘন্টা মহাসড়ক অবরোধের সময় বিক্ষুব্ধুরা প্রায় ২০টি বাস ভাঙ্গচুর করেছে। আন্দদ পরিবহনের একটি বাস পুড়িয়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় শ্রীনগর থানার এস আই আমিনুল ইসলাম, লৌহজং থানার এস আই কিবরিয়া, পলিশ কনস্টোবল ফারুক, দেলোয়ার, মোকাদ্দেস ও সিদ্দিকুর আহত হয়।

বিক্রমপুর সংবাদ
—————————————–

মুন্সীগঞ্জে সংঘর্ষের ঘটনায় দু’টি মামলা

আড়িয়াল বিলে বিমানবন্দর নির্মাণের বিরুদ্ধে ঢাকার সমাবেশমুখি জনতার সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় চার হাজারেরও বেশি মানুষকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানায় দুটি মামলা করেন থানার উপ-পরিদর্শক মো. খালিদ ও পরিবহন শ্রমিক মাসুদ মিয়া।

মো. খালিদের মামলায় অজ্ঞাত দুই হাজার এবং মাসুদ মিয়ার মামলায় অজ্ঞাত আরো দুই হাজার ২৬ এলাকাবাসীকে আসামি করা হয়।

বুধবার দুপুরে শ্রীনগর উপজেলার ষোলঘর এলাকায় এই সংঘর্ষের সময় একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন এবং ফায়ার সার্ভিসের গাড়িসহ অন্তত ২০টি যানবাহন ভাংচুর করা হয়। ভাংচুর করা হয় আশপাশের অন্তত ৩০টি বাড়ি-ঘর ও দোকান।

শ্রীনগর উপজেলার আড়িয়াল বিলে প্রস্তাবিত বিমানবন্দর নির্মাণ না করার দাবিতে রাজধানীর মুক্তাঙ্গনে ডাকা সমাবেশে যোগ দিতে যাওয়ার সময় বাধা দিলে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বিডি নিউজ 24
—————————————————

শ্রীনগর থানায় দুই মামলায় আসামি চার হাজার
আড়িয়াল বিলের বিরোধ
বিমানবন্দর নির্মাণে প্রসত্মাবিত আড়িয়াল বিল এলাকার অজ্ঞাত পরিচিত ৪ হাজার ২৬ জনকে আসামি করে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানায় পৃথক দু’টি মামলা রম্নজু করা হয়েছে। শ্রীনগর থানার এস আই মোঃ খালিদ বাদী হয়ে বুধবার রাতে একটি মামলা দায়ের করেন এবং এতে ২ হাজার বিলবাসীকে আসামি করা হয়। দ্বিতীয় মামলা করেন ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের আনন্দ পরিবহনের বাসের হেলপার মাসুদ মিয়া। একই রাতে দায়ের করা ঐ মামলায় আরও ২ হাজার ২৬ বিলবাসীকে আসামি করা হয়। শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাখাওয়াত হোসেন জানান, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে সরকারী কাজে বাধা প্রদান ও পুলিশের ওয়্যারলেস ছিনতাইয়ের অভিযোগ এনে বুধবার রাত ১০টায় সংঘর্ষে আহত এস আই মোঃ খালিদ বাদী হয়ে ২ হাজার বিলবাসীকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। অন্যদিকে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে জেলার শ্রীনগর উপজেলার ছনবাড়ি চৌরাস্তা থেকে কেয়টখালী পর্যনত্ম অবরোধ সৃষ্টি করে আনন্দ পরিবহনের বাসে অগি্নসংযোগ করার ঘটনায় বাসটির হেলপার মাসুদ মিয়া বাদী হয়ে রাত সাড়ে ১০টায় আরও ২ হাজার ২৬ জনকে আসামি করে অপর মামলাটি দায়ের করেন।
বুধবার বিকেলে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ছনবাড়ি চৌরাসত্মা থেকে কেয়টখালী এলাকা পর্যনত্ম ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে বিৰুব্ধ আড়িয়াল বিলবাসী বিমানবন্দর নির্মাণের প্রতিবাদে অবরোধ সৃষ্টি করে। এ সময় বিৰুব্ধরা বেশকিছু গাড়ি ভাংচুর ও আনন্দ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে অগি্নসংযোগ করে। তা ছাড়া মহাসড়কে পুলিশ ও বিলবাসীর সঙ্গে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষে পুলিশসহ ২০ জন আহত হয়।

জনকন্ঠ
———————————————–

[ad#bottom]