আড়িয়ল বিলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

মামলার প্রতিবাদে মিছিল, ৩১ জানুয়ারি মানববন্ধন
আড়িয়ল বিলে বঙ্গবন্ধু বিমান বন্দর নির্মাণের জমি অধিগ্রহণের কার্যক্রম শুরুর প্রতিবাদে ঢাকা-মাওয়া সড়কে গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ এবং পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় বৃহস্পতিবার সারাদিন মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করে।

উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় মহাসড়কের একাধিক পয়েন্ট ও আড়িয়ল বিল এলাকায় বৃহস্পতিবার পুলিশ মোতায়েন ছিল দিনব্যাপী।

গত বুধবার রাতে শ্রীনগর থানায় ৪ হাজার ২৬জনের বিরুদ্ধে পৃথক দু’টি মামলা দায়েরের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বিকেলে আড়িয়ল বিল এলাকার বাসিন্দারা সেখানে বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করেন।

আড়িয়ল বিল রক্ষা কমিটির আহবায়ক শাহজাহান বাদল বাংলানিউজকে জানান, মিছিল শেষে আগামী ৩১ জানুয়ারি শ্রীনগর উপজেলার হাষাড়া পয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে।

অন্যদিকে, গাড়ি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় বুধবার রাতে শ্রীনগর থানায় মামলা রুজু হলে পুলিশের গ্রেপ্তার আতঙ্কে আড়িয়ল বিলের আরধীপাড়া, মুন্সীরহাটি, সমষবাদ, ষোলঘর ও ভূইচিত্র গ্রাম বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পুরুষ শুন্য হয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে শ্রীনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাখাওয়াত হোসেন বাংলানিউজকে জানান, বুধবার বিকেলে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে অবরোধ সৃষ্টি করে বাসে অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে সরকারি কাজে বাধা প্রদান করায় দু’টি পৃথক মামলা করা হয়েছে।

ওসি জানান, অজ্ঞাত পরিচয়ের ৪ হাজার ২৬ ব্যক্তিকে আসামি করে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানায় ওই দিন দিবাগত রাতে উপ-পরিদর্শক (এসআই) খালিদ ও আনন্দ পরিবহনের হেলপার মাসুদ মিয়া বাদী হয়ে পৃথকভাবে মামলা দু’টি করেন।

তিনি আরও জানান, যে কোনও ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে আড়িয়ল বিল এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এজন্য মুন্সীগঞ্জ জেলা সদর থেকে ১ প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশও আনা হয়েছে।

বিল রক্ষা কমিটির আহবায়ক শাহজাহান বাদল বাংলানিউজকে জানান, বিমান বন্দর নির্মাণে প্রস্তাবিত আড়িয়ল বিল এলাকার শতাধিক লোক বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত শ্রীনগর উপজেলার কেয়টখালী, হাষাড়া ও ষোলঘর এলাকায় পৃথক পৃথক বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

হাষাড়া পেট্রল পাম্পের সামনে দায়িত্বরত শ্রীনগর থানার উপপরিদর্শক ইয়ার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, ‘বুধবারের ঘটনার পর এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে বৃহস্পতিবার কোনও ধরনের মিছিল বা সমাবেশ হয়নি বলে জানান তিনি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

[ad#bottom]