মুন্সীগঞ্জে রান্না হয় গভীর রাতে

মুন্সীগঞ্জে শহরসহ আশপাশ এলাকায় গ্যাসের প্রকট সমস্যার কারণে রান্না করতে হয় গভীর রাতে। এতে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে গৃহিণীদের মধ্যে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে শহরসহ আশপাশ এলাকার হাজার পরিবার। তাই দিন দিন তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে। চুলায় সারাদিনেও কোন গ্যাস পাওয়া যায় না।

রাত ১২টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত মোটামুটি গ্যাস পাওয়া গেলেও তাদের ইচ্ছা অনুযায়ী খাবার রান্না করতে পারে না। এখন সকল বাড়ির গৃহিণীরই রাতের ঘুম হারাম করে সারাদিনের রান্না তৈরি করে রাখতে হয়। অনেক এলাকায় রাত ৩টার দিকে কোন রকম গ্যাস এলেও আবার ৪টার দিকে চলে যায়।

দীর্ঘদিন ধরে এ সমস্যা থাকলেও এর উন্নতি ঘটানোর জন্য প্রশাসন বা জনপ্রতিনিধির কোন উদ্যোগ লক্ষ্য করা যায়নি। শহরের কলেজপাড়ার গৃহিণী রেখা বেগম বলেন, সারাদিনের রান্না প্রতিদিনই গভীর রাতে সারতে হয়। বহুদিন ধরে এ সমস্যা থাকলেও এর কোন সুরাহা করতে কেউ এগিয়ে না আসায় তিনি হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। বাগমামুদালী পাড়ার বাসিন্দা হীরা মনি বলেন, গ্যাসের অভাবে কোন দিন গড়ে রান্নাও করতে পারি না। ফলে কোন কোন দিন না খেয়েও থাকতে হয় বা পরিবারের সবাইকে সময়মতো খাবার খেতে দিতে পারি না। মালপাড়ার শাহনাজ বেগম বলেন, সকালে অফিসে যেতে হয়, তার মধ্যে সারারাত জেগে বসে থাকতে হয় রান্নার জন্য। নির্ঘুম চোখ নিয়ে অফিসে যেতে হয়। এমনকি ছুটির দিনগুলোতে ভাল-মন্দ রান্নার ইচ্ছা থাকলেও গ্যাসের অভাবে তা করতে পারি না। পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার বলেন, গ্যাসের অভাবে ঘরে নাস্তা তৈরি করতে না পারায় স্কুলে গিয়ে দোকান থেকে হালকা নাস্তা কিনে খেতে হয় আবার অনেক সময় স্কুল থেকে বাড়িতে ফিরে এসে ঘরে রান্না করা খাবার খেতে পারি না।

[ad#bottom]