পাশবিক!

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার ফিরিঙ্গিবাজার এলাকায় সাত বছরের শিশু মনিরার প্রাইমারি স্কুলে পড়ার শখ পূরণ হলো না। এক নরপশুর শিকার হয়ে জীবন দিতে হয়েছে তাকে। গতকাল বাড়ির অদূরে নালা থেকে ক্ষত-বিক্ষত মনিরার লাশটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। সুরতহাল রিপোর্ট অনুযায়ী নিষ্পাপ শিশুটিকে ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। তার গলায় ফাঁসের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়া ঠোঁটের ডান পাশ ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। ধর্ষণ শেষে হত্যার শিকার হতভাগী মনিরার লাশ মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য নেয়া হলে তার পরিবারের সদস্যদের আহাজারিতে উপস্থিত লোকজন চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি।

শিশুটির পরিবার সূত্রে জানা গেছে, পটুয়াখালীর গলাচিপা থানার কলাগাছিয়া গ্রামের মান্নান শিকদার পাঁচ সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে মুন্সীগঞ্জের ফিরিঙ্গিবাজারে বোগদাদ অটোরাইস মিলে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন।

বেশ কয়েক বছর মান্নান শিকদার এ এলাকায় ভাড়া থাকেন। বুধবার সন্ধ্যায় মনিরা পাশের বাসায় টিভি দেখার জন্য ঘর থেকে বের হয়। রাতে মনিরা আর ফিরে না আসায় সারারাত খোঁজাখুঁজি করেন পরিবারের লোকজন। গতকাল স্থানীয় লোকজন লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে মনিরার ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।

মনিরার ভাই বিনোদপুর স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্র মো. সাইফুল ইসলাম জানায়, ছোট বোন মনিরা তার কাছে আদর্শলিপি বই পড়ে শেষ করেছে। আগামী বছর প্রাইমারি স্কুলে ভর্তি হওয়ার আনন্দে সে বিভোর থাকত; কিন্তু মানুষরূপী শয়তান সে আশা পূরণ হতে দিল না। সে তার বোনের হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে।
এ বিষয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম জানান, মামলার প্রস্তুতি চলছে। ময়নাতদন্তের পরপরই মামলা রুজু করা হবে।

আমার দেশ
——————————————–

ফিরিঙ্গিবাজারে ৭ বছরের শিশুকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা

জান্নাতুল ফেরদৌসৗ,মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জ সদরের ফিরিঙ্গিবাজার এলাকায় বুধবার রাতে মনিরা আক্তার নামের ৭ বছরের এক শিশুকে শ্বাসাদ্ধ করে হত্যা করেছে দুর্বত্তরা। বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় করিম মিয়ার ধানের চাতালের ড্রেন থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, গলায় শ্‌সাসরুদ্ধ করে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে। তবে তাকে পাশবিক নির্যাতন করা হয়েছে কিনা তাৎক্ষনিক তা সনাক্ত করা যায়নি। এমনকি কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে তাও কেউ বলতে পারছে না। হত্যাকারীদের সনাক্তের চেষ্টা চলছে। নিহতের পিতা মিল শ্রমিক মান্নান সিকদার জানান, এলাকায় তাদের কোন শত্রু নেই। বুধবার সন্ধার পর থেকে শিশু মনিরা আক্তার নিখোজঁ হয়। তাদের বাড়ি পটুয়াখালি জেলার গলাচিপা উপজেলার কলাগাছিয়া গ্রামে। এ ঘটনায় সদর থানায় হত্যা মামলা রুজু হয়েছে।

বিডি রিপোর্ট ২৪
—————————————-

মুন্সিগঞ্জে নিখোঁজের ১১ ঘন্টার মাথায় শিশুর লাশ !

সদর উপজেলার ফিরিঙ্গিবাজারে নিখোঁজ হওয়ার ১১ ঘন্টার মাথায় বৃহস্পতিবার এক শিশুর লাশ ড্রেন থেকে পুলিশ উদ্বার করেছে। ৭ বছর বয়েসী নিহত শিশুর নাম মনিরা আক্তার। সে স্থানীয় দিন মজুর মান্নান শিকদারের কন্যা। তারা পটুয়াখালীর স্থায়ী বাসিন্দা। দারিদ্রতার কারণে কাজের আশায় এখানে এসছির। শিশুটির মা ঝিয়ের কাজ করে। সদর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, বুধবার রাত ৭টার দিকে মনিরা আক্তার বাড়ী থেকে বের হওয়ার পর আরইফরেনি। রাতেই বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করে জিডি করা হয়। খোঁজাখুঁজির পর সকালে তার লাশ উদ্ধার হয়। পুলিশের ধারনা তাকে ধর্ষনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হতে পরে। এব্যাপারে সদর থানায় মামলা হয়েছে। এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।

বিক্রমপুর সংবাদ
—————————————————-

[ad#bottom]