প্রধানমন্ত্রী চূড়ান্ত করবেন বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের স্থান

খুব শিগগিরই বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের স্থান চূড়ান্ত করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বয়ং বিমান বন্দরের স্থান চূড়ান্ত করবেন। এ লক্ষ্যে একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রস্তুত করা হয়েছে। পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনার পর এ ব্যাপারে চূড়ান্ত অভিমত দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এটি উপস্থাপনের জন্য সময় চেয়ে বিমান মন্ত্রণালয় থেকে কয়েকদিন আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সম্মতি প্রদান করলে তার কাছে এই পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করা হবে। বিমান মন্ত্রণালয়ের নির্ভরযোগ্য সূত্র এ কথা জানায়। সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর কাছে যে পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করা হবে, সেখানে পাঁচটি স্থান নির্বাচন করা হয়েছে। এসব স্থানের মধ্যে টাঙ্গাইল, মুন্সীগঞ্জ ও শরীয়তপুরে একটি করে এবং ময়মনসিংহে দুটি স্থান রয়েছে। তবে মুন্সীগঞ্জ ও শরীয়তপুরের স্থান দুটি পদ্মা সেতুসংলগ্ন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণের লক্ষ্যে প্রথমে প্রাথমিকভাবে টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ এলাকায় তিনটি স্থান নির্বাচন করা হয়।

পরবর্তীতে পদ্মা নদীর দুপাশে ঢাকার দোহার, নওয়াবগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জ এলাকার লৌহজং, সিরাজদিখান এলাকা থেকে একটি এবং ফরিদপুর, মাদারীপুর ও শরীয়তপুর থেকে আরো কয়েকটি স্থান নির্বাচন করা হয়। বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দরের জন্য প্রথম দিকে দুই রানওয়ে বিশিষ্ট বিমানবন্দরের জন্য ৬ হাজার একর জমি অধিগ্রহণের পরিকল্পনা ছিল পরে এই পরিমাণ বাড়িয়ে ১০ থেকে ১২ হাজার একর জমি অধিগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সূত্র জানায়, চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের স্থান চূড়ান্ত করতে পারেন। এ ছাড়া আগামী ৩০ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর তৈরির জন্য দরপত্র আহ্বান করা হবে। সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে নির্মিতব্য এ বিমান বন্দরের প্রাথমিকভাবে ব্যয় ধরা হয়েছে ৫০ হাজার কোটি টাকা। এ ব্যাপারে বেসমারিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব শফিক আলম মেহেদী জানান, বঙ্গবন্ধু বিমান বন্দরের স্থান চূড়ান্তকরণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করা হবে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট সময় চেয়ে মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী যেদিন সময় দেবেন সেদিনই পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করা হবে। উল্লেখ্য, ২৯ আগস্ট মন্ত্রিসভা বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর নির্মাণের অনুমোদন দেয়।

দিনের শেষে

[ad#bottom]