পদ্মাসেতু বাস্তবায়ন এখন সময়ের ব্যাপার: যোগাযোগমন্ত্রী

যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন বলেছেন, পদ্মাসেতু নির্মাণ এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। শুক্রবার মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার পদ্মা বহুমুখী সেতুস্থল পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী আরও জানান, পদ্মাসেতু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ২১ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ১৬ হাজার কোটি টাকা উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকে পাওয়া গেছে। অবশিষ্ট পাঁচ হাজার কোটি টাকা অভ্যন্তরীণভাবে যোগান দিতে হবে। এ অর্থ যোগান দিতে সরকার প্রস্তুত রয়েছে।

সেতুর নকশা চূড়ান্ত হয়েছে, টেন্ডার আহ্বান করার কাজও শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে যোগাযোগমন্ত্রী সকালে মাওয়ায় সেতু বিভাগের রেস্ট হাউজে পদ্মাসেতুর জন্য অধিগ্রহণ করা জমির ১শ’ সাত জন মালিকের তিপূরণের টাকার চেক বিতরণ করেন।

স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, লৌহজং উপজেলা চেয়ারম্যান ওসমান গনি তালুকদার, পদ্মাসেতুর প্রকল্প পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম, মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক আজিজুল আলম প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

পরে মন্ত্রী মাওয়ার পার্শ্ববর্তী কুমারভোগ এলাকায় পদ্মা সেতুর পুনর্বাসন কাজের অগ্রগতি ঘুরে দেখেন ও সেতু পয়েন্ট পরিদর্শন করেন।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, পদ্মাসেতু নির্মাণে কংক্রিটের পাশাপাশি স্টিলের প্লেটও ব্যবহার করা হবে। বার বার বদল হলেও অবশেষে দোতলা এই ব্রিজের ডিজাইন চূড়ান্ত হয়েছে। এতে রেললাইনও থাকছে।

পদ্মা বহুমুখী সেতুর নির্মাণের কারণে তিগ্রস্ত জমির মালিকদের পুনর্বাসনের জন্য লৌহজংয়ের কুমারভোগ ও যশলদিয়ার দু’টি পুনর্বাসন গ্রাম নির্মাণের কাজ চলছে। দুটি গ্রামে মাটি ভরাটের কাজ শেষ হয়েছে। কুমারভোগ গ্রামে এখন চলছে অবকাঠামো নির্মাণের কাজ।

ফারহানা মির্জা, জেলা প্রতিনিধি
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

[ad#bottom]