নির্মাণের ছয় মাসেই চলাচলের অনুপযোগী

নির্মাণের ছয় মাস পরই মরণফাঁদ হিসেবে দেখা দিয়েছে একটি রাস্তা। গাড়ি চলাচলতো দূরের কথা পায়ে হেঁটেও সিরাজদিখান উপজেলার ইমামগঞ্জ-বাসাইল-গুয়াখোলা-রামকৃষনদী রাস্তার গুয়াখোলা দেওয়ানবাড়ী থেকে বাগবাড়ি কবরস্থান পর্যন্ত যাওয়া যায় না। এলজিইডি বিভাগের প্রায় এক কিলোমিটার এ রাস্তার নির্মাণ ব্যয় হয়েছে প্রায় সাতাশ লাখ টাকা।

নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে গত জুন মাসে। হিসাব অনুযায়ী রাস্তাটির উপরের অংশ ১৬ ফুট প্রশস্ত হওয়ার কথা থাকলেও বেশির ভাগ জায়গাই দশ ফুটের বেশি প্রশস্ত হয়নি। এমনকি রাস্তার উচ্চতাও প্রথম অংশ হতে শেষ অংশ প্রায় ২-৩ ফুট নিচু। তাই এ বর্ষা মওসুমে রাস্তার প্রায় অর্ধেক অংশ পানিতে তলিয়ে গেছে। তাছাড়া ডিজাইন মোতাবেক রাস্তার স্লোপ (ঢাল) করা হয়নি। ইট বিছানো রাস্তায় বর্তমানে ইটাগুলো বিভিন্ন জায়গায় দেবে যাওয়ায় পায়ে হাঁটাও অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়েছে।

[ad#bottom]