মাওয়ায় দুই ঘন্টা মহাসড়ক অবরোধ

মাওয়া চৌরাস্তা থেকে মাওয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত মহাসড়কের দু’পাশের অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা দোকান-পাট উচ্ছেদের প্রতিবাদে কয়েকশ’ দোকানদার টায়ার জ্বালিয়ে মহাসড়কে ব্যারিকেট সৃষ্টি করে যানবাহন চলাচল সম্পূর্ন বন্ধ করে দেয়। এতে যান ও ফেরি চলাচল সম্পূর্ন বন্ধ হয়ে সৃষ্টি হয় কয়েক কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের।

ঈদকে সামনে রেখে কোন প্রকার অগ্রিম নোটিশ ছাড়া এরকম উচ্ছেদে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয় ।এসময় তারা রাস্তার মাঝে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়কে অবরোধ সৃষ্টি করে। প্রায় দু’ঘন্টা অবরোধ চলার পর নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাইনুদ্দিন, এএসপি (সার্কেল শ্রীনগর) কামরুজ্জামান , লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ হেলাল উদ্দিন ও বিআইডব্লিউটিএ মাওয়া বন্দর কর্মকর্তার উপস্থিতিতে স্থানীয় দোকান মালিকদের সাথে সমঝোতা বৈঠকের পর অবরোধকারীরা বিকেল সাড়ে ৪ টায় অবরোধ তুলে নেয়।

বিআইডব্লিউটিএ’র ম্যানেজার সিরাজুল ইসলাম জানান, ব্যারিকেট তুলে নেবার পর যান চলাচল শুরু হয়েছে। এদিকে যান চলাচল বন্ধ থাকায় কয়েকশ’ যাত্রীবাহি বাস ও ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন আটকা পড়ে কয়েক কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয।

ঈদে ঘরমুখে দক্ষিন বঙ্গের মানুষের যাতায়াত নিশ্চিত করতে বৃহস্পতিবার মাওয়ায় ম্যাজিষ্ট্রেটের নের্তৃত্বে রাস্তার পাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। মাওয়া চৌরাস্তা হতে ঘাট এলাকা পর্যন্ত রাস্তার পাশে যে সকল দোকান পাট রয়েছে তার বর্ধিত অংশ যেমন দোকান ঘরের ঝাপ বা লম্বা শাটার, চালের বর্ধিত অংশ মুন্সিগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাইনুদ্দিনের নের্তৃত্বে উচ্ছেদ করা হয়। এসকল বর্ধিত স্থাপনা উচ্ছেদে ঈদে মহাসড়ক দিয়ে যানবাহন পারাপার সহজ হবে এবং যাত্রীরা নির্বিঘেœ যাতায়াত করতে পারবে বলে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

[ad#co-1]