আহত শিক্ষক শঙ্কামুক্ত, বখাটেদের বিরুদ্ধে মামলা

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় গতকাল রোববার বখাটেদের হামলায় আহত হয়েছিলেন স্কুলশিক্ষক মিজানুর রহমান। আজ সোমবার মিজানুরের মা মঞ্জুয়ারা বেগম বাদী হয়ে গজারিয়া থানায় বখাটে আল আমিন ও তার অজ্ঞাত চার-পাঁচ সহযোগীর বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ফরিদউদ্দিন প্রথম আলোকে জানান, ওই বখাটেদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত আছে।

গতকাল দুপুরে উপজেলার ভবেরচরে আট-দশজন বখাটে অসডার একাডেমির শিক্ষক মিজানুর রহমানকে (২৮) পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়া মিজানুরের অবস্থা এখন আশঙ্কামুক্ত। গত শনিবারও অসডার একাডেমির একজন ছাত্রীকে এক বখাটে লাঞ্ছিত করে।

আহত শিক্ষক মিজানুর রহমান ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, স্থানীয় অসডার একাডেমির অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীরা ভবেরচর ওয়াজির আলী উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা দিচ্ছে। গতকাল দুপুরে ইংরেজি প্রথম পত্র পরীক্ষা শেষ হলে কেন্দ্রের পাশেই ভবেরচর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের একটি কক্ষে টিফিন করছিল অসডারের এক ছাত্রী। ওই সময় শ্রীনগর গ্রামের আল আমিন মুঠোফোন দিয়ে তার ছবি তোলার চেষ্টা করে। এতে বাধা দেন পাশে থাকা অসডার একাডেমির শিক্ষক ও ছাত্রীটির মামাতো ভাই মিজানুর। এর কিছুক্ষণ পর আল আমিন আট-দশজন সঙ্গী নিয়ে মিজানুরের ওপর চড়াও হয় এবং তাঁকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে থাকে। একপর্যায়ে মিজানুর অচেতন হয়ে পড়েন।

শিক্ষক মিজানুরকে উদ্ধার করে গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক পঙ্কজ কান্তি মণ্ডল প্রথম আলোকে জানান, মিজানুর এখন আশঙ্কামুক্ত। তাঁর শরীরের বিভিন্ন স্থান থেঁতলে গেছে। সারতে কয়েক দিন সময় লাগবে।

[ad#co-1]