মুন্সিগঞ্জে ব্যাপক ভাংচুর সারের গোডাউন লুট॥ ২০ জন আহত

সিরাজদিখান উপজেলার বালুরচরে একটি সারের গোডাউন সহ ৪টি দোকান ও একটি বেকারী ভাংচুর করে লুটপাট করেছে সন্ত্রাসীরা। লুটপাটের সময় মেসার্স রায়হান ট্রেডার্সের ২০ জন কর্মচারী আহত হয়। আহতের বিভিন্ন হাসপাতালে ও ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার রাতে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও ভূক্তভোগীরা জানায়, স্থানীয় মোল্লাকান্দি গ্রামের সুরুজ্জামান সরকারের নেতৃত্বে ৪০/৫০ সশস্ত্র সন্ত্রাসী রাতে বালুরচর বাজারে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় তারা বাজারের ৪টি দোকন, একটি বেকারীতে ব্যপক ভাংচুর করে গোটা এলাকায় আতংক ছড়িয়ে দেয়। এ সকল দোকানে লুটপাটসহ পরে তারা কে.এম.বি ট্রেডার্সের গোডাউনে রাখা প্রায় এক হাজার বস্তা ইউরিয়া সার লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি সিরাজদিখান থানা পুলিশকে অবহিত করলেও পুলিশ ৪ ঘন্টা পরে ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের বিলম্বে উপস্থিতি এবং এই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী সকালে বিক্ষোভ মিছিল করে। তারা অনতিবিলম্বে এই চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। এ বিষয়ে সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুব আলম জানান, এই ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার আশ্বাস দেন।

বর্তমানে মুন্সিগঞ্জ এখন আলু রোপন করা মৌসুম এই মৌসুমে প্রচুর পরিমানে সারের প্রয়োজন হয়। সেই লক্ষে সিরাজদিখান থানার বালুচর ইউনিয়নের কে. এম. বি ট্রেডার্সের গোডাউনে হামলা চালিয়ে ব্যপক ভাংচুর করে প্রায় এক হাজার বস্তা ইউরিয়া সার লুট করে। সারের গোডাউনে হামলা ও লুটপাটের কারণে কৃষকরা সার কিনতে পারছে না ফলে আলু রোপন করতেও পারছে না। এতে করে শনিবার রাত থেকে বালুচর বাজারে খাস মহলের ৬ হাজার পরিবার জিম্মি হয়ে আছে। সাংবাদিকদের উপস্থিতিতিতে এলাকার লোকজন কিছুটা স্বস্তি পেলেও যে কোন সময় হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে স্থানীয় লোকজন। এলাকা থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে। সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন এবং আইনগত বিচার হবে বলে আশ্বাস দেন।

[ad#co-1]